পাবজির নেশায় খাওয়া-দাওয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু বছর ১৬ এক ছেলে-

পাবজির নেশায় খাওয়া-দাওয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু বছর ১৬ এক ছেলে-

আজ বাংলা: পাবজির নেশা কেড়ে নিল আরেকটি তরতাজা প্রাণ। ১৬ বছর এর এক ছেলে পাবজীর জন্য বন্ধ করে দিয়েছিল খাওয়া। স্নান পর্ব অনেক দিন আগেই মিটে গেছে। বাবা মার অনেক বারণ সত্বেও কোনো কথা কানে দেয়নি সে। জল খাওয়া অবধি ভুলে গেছিল অন্ধ্রপ্রদেশের ছেলেটি। অবশেষে মৃত্যু হয় তার।

করোনা ভাইরাসের দাপটে বন্ধ স্কুল কলেজ। অনলাইন ক্লাস এর মাধ্যমে পড়াশোনা হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু পড়ুয়ারা বাড়িতে থেকে বেশি মোবাইল অ্যাডিক্ট হয়ে পড়ছে।এই ছেলেটির ক্ষেত্রেও ঘটেছে একই ঘটনা। পড়াশোনা ছেড়ে গেমে মেতেছিল সে। 

সংবাদমাধ্যম 'দ্য হিন্দু' র রিপোর্ট থেকে জানা যায় ডিহাইড্রেশনের কারণে মৃত্যু ঘটেছে তার। অন্ধপ্রদেশের ইলরু শহরের বাসিন্দা সে। পাবজি খেলতে খেলতে হঠাৎ একদিন অজ্ঞান হয়ে যায় সে, বাবা-মা তৎক্ষণাৎ হাসপাতালে নিয়ে যায়। ডাক্তার পরীক্ষা করে জানান ডায়রিয়ায় আক্রান্ত। তারপরে সেখানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে জীবন শেষ হয় তার।

গেমে আসক্ত হয়ে মৃত্যু ঘটনা এই প্রথম নয়, এই বছরের জানুয়ারি মাসে বছর পঁচিশের এক যুবক ব্রেন স্ট্রোকে মারা যান। ডাক্তারেরা জানিয়েছিলেন অতিরিক্ত গেম খেলাই ব্রেইন স্ট্রোকের কারণ।

গেমের নেশার মৃত্যু ঘটেছে অনেক। তবে পাবজির নেশা স্কুলপড়ুয়াদের মধ্যে বেশি দেখা যায়।