দেশে আক্রান্ত ছাড়াল ৬০০, মৃত বেড়ে ১২ দেশে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪০ জন

আজবাংলা    করোনাভাইরাসে ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬০৬। বুধবার নতুন করে সংক্রমণ নিশ্চিত হয়েছে ৮৭ জনের। অন্য দিকে বুধবার তামিলনাড়ুতে এক জন এবং মধ্যপ্রদেশে এক জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে দেশের মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২। করোনা সংক্রমণে এই প্রথম মৃত্যু হল তামিলনাড়ুতে। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলিতেও। প্রথম আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে মিজোরামে। এ দিন মধ্যপ্রদেশে নতুন করে ৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। উত্তরপ্রদেশের পিলভিতে আক্রান্ত হয়েছেন আরও এক জন। দেশের মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে কেরল। সেখানে ১০৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। ১০১ জন আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এর মধ্যেই স্বস্তির খবর, ইতিমধ্যেই দেশে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪০ জন।মধ্যপ্রদেশে নতুন করে আক্রান্ত ৬। দিল্লিতে ৭২ লক্ষ মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেবে কেজরীবাল সরকার। নির্মাণ শ্রমিকদের দেবে ৫০০০ টাকা।ম্যালেরিয়া প্রতিরোধক ওষুধের রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করল সরকার। ২৪ ঘণ্টায় ৭৩৮ জনের মৃত্যু স্পেনে।দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭০৬।জার্মানিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩১ হাজার ছাড়াল। মৃত ১৪৯।পাকিস্তানে আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছুঁতে চলেছে। আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি সিন্ধ প্রদেশে।নিউ ইয়র্কে দ্রুত গতিতে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রায় ২৬ হাজার আক্রান্ত সেখানে।বিশেষজ্ঞদের দাবি, করোনার জেরে লকডাউনের কারণে ভারতের আর্থিক ক্ষতি হতে পারে ৯ লক্ষ কোটি টাকা। মঙ্গলবার রাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেন, গোটা দেশে লকডাউন জারি থাকবে আরও ২১ দিন, অর্থাৎ ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। এই সময় সকলকেই ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে জরুরি পরিষেবাগুলো অব্যাহত থাকবে বলেই জানিয়েছেন তিনি। দেশে সংক্রমণ যাতে দ্রুত গতিতে না বাড়তে পারে, তার জন্য সামাজিক দূরত্বও বজায় রাখার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্য প্রশাসনগুলোর তরফে। তার পরেও লকডাউন অমান্য করার অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন রাজ্যে। ফলে এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কোনও কোনও রাজ্য কার্ফুও জারি করেছে।