সিনেমার মত অপহরণের গল্প সাজিয়ে বাবাকে ফোন নবম শ্রেণির ছাত্রের, মুক্তিপণের দাবি ১০ লক্ষ টাকা

সিনেমার মত অপহরণের গল্প সাজিয়ে বাবাকে ফোন নবম শ্রেণির ছাত্রের, মুক্তিপণের দাবি ১০ লক্ষ টাকা

আজবাংলা  হেডিং দেখে চমকে উঠেছেন? বিশ্বাস হচ্ছে না? তবে এই বিশেষ কাণ্ডটি কিন্তু ঘটেছে, তামিলনাড়ুর (Tamil Nadu) চেন্নাইয়ে (Chennai)। নিজের অপহরণের ছক নিজেই কষেছিল ছাত্র। কারন হিসাবে উঠে এসেছে, বাবার থেকে টাকা হাতানোর ধান্দা।

আসুন জেনে নিন পুরো ঘটনাটি। হঠাৎ করেই একদিন ওই ছেলেটির বাবার কাছে অচেনা একটি ফোন আসে। এরপর ফোন তুলতেই ভেসে আসে কাঁদো কাঁদো গলা। সেখানে তাঁর ছেলেকে কাঁদো কাঁদো গলায় বলতে শোনা যায় যে, তাকে নাকি কেউ অপহরণ করে নিয়ে গেছে। এখন টাকা না দিলে তাঁকে ছাড়বে না। এরপর জন্য মুক্তিপণ হিসেবে দিতে হবে দশ লক্ষ টাকা।

ছেলেটির বাবা পেশায় গাড়ির যন্ত্রাংশের বিক্রেতা। এখন ওই ব্যক্তি চলে যায় চেন্নাইয়ের ট্রিপলিক্যানের জ্যামবাজার পুলিশ স্টেশনে। এরপর পুলিশের কাছে পুরো ঘটনাটি জানান। এর পাশাপাশি বলেন, তাঁর ছেলে আইস হাউস (Ice House) এলাকায় কোচিং ক্লাসে সে যাওয়ার পরই আসে সেই অচেনা নম্বর থেকে অপহরণের ফোন।

পুরো ঘটনা জানা মাত্রই তদন্তে নাম পুরো পুলিশের টিম। এরপর অপহরণকারীর ফোন নম্বরটি ট্র‌্যাক করা হয়। তখন দেখা যায় ওই সিমটি চিপক এলাকায় রয়েছে। এরপর, পুলিশ গিয়ে দেখে চিপক রেল স্টেশনে ওই ছেলেটিকে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এরপর সঙ্গে সঙ্গে ছেলেটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যায় সেফ এলাকায়। তখন শুরু হয় পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদ।

এরপরই তার কথা বার্তায়, আচরণে বেশ কিছু অসঙ্গতি মেলে। তখন পুলিশের আধিকারিকরা স্টেশনের সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করেন। এরপর তখন দেখা যায়, একটি অটো রিকশা করে ওই ছাত্রটি এবং তার সাথে থাকা বন্ধুরাও স্টেশনে নামছে। এরপর পুলিশ গিয়ে সেই অটোচালককেও কিছুক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ করে।

তখন সব কিছু জলের মত পরিস্কার হয়ে যায়। শেষে জানা যায় যে,  ছেলেটি তার বন্ধুদের সঙ্গে কোচিংয়ে না গিয়ে ফোন থেকে অটো বুক করে চিপক স্টেশনে আসে। এরপরই সবকিচু স্বীকার করে নেয় ওই ছেলেটি। শেষপর্যন্ত ওই ছেলেটিকে বুঝিয়ে শুনিয়ে ও সতর্ক করে ছেড়ে দেয় পুলিশ।