মালদায় জঙ্গল থেকে এক ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য

মালদায় জঙ্গল থেকে এক ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য

ডাক্তার দেখিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এক ব্যক্তিকে খুনের অভিযোগ উঠল দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে, জঙ্গলের মধ্যে থেকে তার গলাকাটা মৃতদেহ উদ্ধার হয় (Malda News)। মালদহ জেলার পুকুরিয়া থানার কোকলামারি বৈরগাছি গ্রামের ঘটনা। তবে খুনের কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে পরিবার ও পুলিশের মধ্যে। ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকা জুড়ে।

পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। খুন নাকি অন্যকিছু, তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তির নাম নীরেন ঘোষ(৪৯)। বাড়ি পুকুরিয়া থানার কোকলামারি গ্রাম পঞ্চায়েতের বৈরগাছি গ্রামে। বৃহস্পতিবার মালদহ শহরে ডাক্তার দেখাতে গিয়েছিলেন নীরেন ঘোষ।

ডাক্তার দেখিয়ে বিকেল নাগাদ মালদহ থেকে পুকুরিয়া পৌঁছান। বিকেলে কোকলামারি বাজারে কেনাকাটা সেরে বাড়ি ফিরছিলেন। বাজার নিয়ে সাইকেলে করে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। তারপর থেকে নিখোঁজ হয়ে যায় নীরেন ঘোষ। গভীর রাত পর্যন্ত বাড়ি না ফেরায় পরিবারের লোকেরা খোঁজাখুঁজি শুরু করে। কিন্তু কোথাও তার হদিশ মেলেনি।

শুক্রবার সকালে বৈরগাছি গ্রাম থেকে প্রায় ৩০০ মিটার দূরে একটি জঙ্গলের মধ্যে গলা কাটা অবস্থায় রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। এলাকায় মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। ছুটে আসেন মৃতের পরিবারের লোকেরা (Malda News)। তারা দেহটি শনাক্ত করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুকুরিয়া থানার পুলিশ এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

মৃতের দাদা অচিন্ত ঘোষ বলেন, "ভাই মালদহ শহরে এসেছিলেন ডাক্তার দেখাতে। বিকেল পর্যন্ত আমরা জানতে পারি ভাই কোকলামারি বাজারে ছিল। তারপর গভীর রাত পর্যন্ত কোন হদিশ মেলেনি। শুক্রবার সকালে গ্রামবাসীদের মুখে শুনতে পাই গ্রামের পাশেই এক জনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। ছুটে গিয়ে দেখি আমার ভাই। আমার ভাইকে খুন করা হয়েছে। তবে কে বা কারা খুন করেছে তা আমরা বলতে পারছিনা। সমস্ত বিষয়টি আমরা থানায় লিখিত ভাবে জানিয়েছি। পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে। আমরা দোষীদের শাস্তি চাই।"