বিশাল এক চিন্তা রাতের ঘুম উড়েছে পাকিস্তানের

বিশাল এক চিন্তা রাতের ঘুম উড়েছে পাকিস্তানের

হাতে সময় ফুরিয়ে এসেছে। পরের সাতদিন পাকিস্তান এবং ইমরান খান সরকারের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। না, ভারতের সঙ্গে যুদ্ধে নামছে না পাকিস্তান। কিন্তু বিশাল এক চিন্তা গ্রাস করেছে ইমরান প্রশাসনকে। যা কোনও অংশে যুদ্ধের থেকে কম নয়। শাস্তির খাঁড়া সামনে ঝুলছে।

এফএটিএফ গ্রে (Financial Action Task Force, FATF) তালিকা থেকে পাকিস্তান বেরোতে পারবে কিনা সেটা যেমন প্রশ্ন, তেমনই আরও খারাপ অর্থাত্‍ কালো তালিকায় চলে যাবে কি না সেটা আরও বড় প্রশ্ন। এমনিতে আর্থিক হাল খারাপ। মুদ্রাস্ফীতি চরমে। ডিমের দাম তিরিশ টাকা। করাচি এবং অন্যান্য শহরে পানীয় জল নিয়ে মাফিয়ারাজ চলছে।

বিদ্যুত্‍ বিভ্রাট লেগেই আছে। তার ওপর এফএটিএফ শাস্তি ঘোষণা করলে পাকিস্তানের দুর্দশা আরও বাড়বে। আন্তর্জাতিক আর্থিক দুর্নীতি নিয়ন্ত্রক সংস্থা এফএটিএফ-র কোপ থেকে বাঁচতে গত কয়েক মাস থেকেই ঘুঁটি সাজাচ্ছিল পাকিস্তান। ধূসর তালিকা থেকে কালো তালিকায় চলে যাওয়া আটকাতে ইতিমধ্যেই দাউদ ইব্রাহিম সহ ২১ জন কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদীকে ভিআইপি সাজানোরও চেষ্টা করেছে পাকিস্তান।

এক ঘরে হয়ে পড়া পাকিস্তানের দুই মিত্র দেশ চিন এবং তুরস্ক তাঁদের সাহায্য করছে। ইতিমধ্যেই সন্ত্রাস দমনে নিজেদের সাফল্যের কথা উল্লেখ করেএফএটিএফকে একটি চিঠি দিয়েছে পাকিস্তান। গত সেপ্টেম্বরে পাক সংসদ এফএটিএফ-এর প্রয়োজনীয়তা মেনে চলার জন্য ১৪টি আইন সংশোধন করে।

অন্যদিকে আরও ১৩টি বিষয়ে পর্যবেক্ষকদের সন্তুষ্ট করে তাঁরা। বিদেশ মন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি জানিয়েছেন ইতিবাচক সিদ্ধান্ত আশা করছেন তাঁরা। কিন্তু বিশ্বস্ত সূত্রে যা খবর তাতে পাকিস্তানের ওপর লাগাম আরও কষতে পারে এফএটিএফ।