মালদায় ৯০ বছরের পঙ্গু বৃদ্ধার জমি বাড়ি জোর করে বিক্রি করে দিল স্থানীয় তৃণমূল নেতা

মালদায়  ৯০ বছরের পঙ্গু বৃদ্ধার  জমি বাড়ি জোর করে বিক্রি করে দিল স্থানীয় তৃণমূল নেতা

মালদা    ৯০ বছরের পঙ্গু বৃদ্ধ ও তাঁর স্ত্রীকে বসত ভিটে থেকে ঘর ছাড়া করে সেই জমি বাড়ি জোর করে বিক্রি করে দিল স্থানীয় তৃণমূল নেতা। খোলা আকাশের নিচে মাঠের মধ্যে পড়ে রয়েছে ওই বৃদ্ধ দম্পতি। মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুরের তেঁতুল বাড়ি গ্রামের ঘটনা। টানা তিন দিন ধরে শীতের মধ্যে খোলা মাঠের মধ্যেই পড়ে আছেন তাঁরা। হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় লিখিত অভিযোগও জানিয়েছেন বৃদ্ধ দম্পতি।কিন্তু এখনো কোনও লাভ হয়নি।

কথা ছিল তাঁদের অন্যত্র অনেক কম দামের একটি জায়গা দেওয়ার। যার জন্যে ১০ হাজার টাকা আগাম নেওয়াও হয়।কিন্তু সেই জমিও দেওয়া হয়নি। ৯০ বছরের সেখ ভুসরা। বয়েসের ভারের পাশাপাশি প্রতিবন্ধী।কথাও স্পষ্ট বলতে পারেন না। বৃদ্ধা স্ত্রী বেগম বিবি। দুই ছেলে পরিযায়ী শ্রমিক। ভিন রাজ্যেই বছরের পর বছর থাকে। রাস্তার ধারে দু কাঠা জমি। সেখানেই আশ্রয়।

রাস্তার ধারের জায়গা হওয়ায় নজর জমি মাফিয়াদের। স্থানীয় তৃণমূল নেতা তথা জমির কারবার করা নাসিরুদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনিও তাঁর লোকজন জোর করে বৃদ্ধ দম্পতিকে ঘর থেকে বের করে তাঁদের বসত ভিটে বিক্রি করতে বাধ্য করে। প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় গ্রামেই অন্যত্র একটি জায়গায় তাঁদের থাকতে দেওয়া হবে।যার জন্যে ১০ হাজার টাকা নাসিরুদ্দিন অগ্রীম নেয় বৃদ্ধ দম্পতির কাছ থেকে।যার সঙ্গে দাপুটে তৃণমূল নেতাদের মদত রয়েছে বলে অভিযোগ।

কিন্তু গত তিন দিন ধরে শীতের মধ্যে খোলা আকাশের নিচে মাঠের মধ্যে পড়ে রয়েছে ওই বৃদ্ধ দম্পতি। দেখা নেই কারো।মেলে নি আশ্রয়। বাধ্য হয়ে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা। জায়গা না পেলে আমৃত্যু এভাবেই পড়ে থাকবেন বলে সাফ জানিয়েছেন তাঁরা। নাসিরুদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি। যদিও এই  নাসিরুদ্দিনে এমন  কান্ডে ক্ষুব্ধ ব্লক তৃণমুল নেতৃত্ব।