ওড়িশার পর বাংলা, বিরল প্রজাতির হলুদ কচ্ছপ উদ্ধার

ওড়িশার পর বাংলা, বিরল প্রজাতির হলুদ কচ্ছপ উদ্ধার

আজ বাংলা: প্রথমে বালাসোর, আর এবার বর্ধমান। ফের উদ্ধার বিরল প্রজাতির হলুদ কচ্ছপ। ঘটনাটি ঘটেছে দেওয়ানদিঘি থানার দাসপুর। সেখানে বামদেব ভট্টাচার্য নামে এক ব্যক্তি মাছ ধরার সময় পুকুর থেকে এই কচ্ছপটিকে পান। 


উল্লেখ্য, গত জুলাইয়ে এমন একটি কচ্ছপ ধরা পড়ে ওড়িশার বালেশ্বর থেকে। জানা গিয়েছে, কচ্ছপটির প্রজাতি ইন্ডিয়ান সফট শেল। খাল, বিল, নদী, পুকুরে প্রচুর পাওয়া যায় কিন্তু এই রং বিরল। ওড়িশার ওয়াইল্ড লাইফ ওয়ার্ডেন তখন বলেছিলেন, এমন কচ্ছপ তাঁরা অতীতে দেখেননি। 


মূলত জিনঘটিত কারণে এমন হয়ে থাকে। রাজ্যের দক্ষিণ-পূর্ব চক্রের মুখ্য বনপাল কল্যাণ দাস বলেন, এটা আলবিনো। যেমন ব্ল্যাক প্যান্থার আসলে চিতাবাঘ। কিন্তু পিগমেন্টে গন্ডগোল থাকায় ওর রং কালো দেখায়। সাদা কাক, সাদা বাঘ সবই আলবিনো।

প্রজাতিটি কমন হলেও এই ঘটনাটি বিরল। তিনি যোগাযোগ করেন বন্যপ্রাণ বিশারদ সুব্রত পালচৌধুরীর সঙ্গে। সুব্রতবাবু তাঁকে জানিয়েছেন, খুব আগে তিনি একবার এমন কচ্ছপ দেখেছিলেন। কচ্ছপটিকে বর্ধমানের চিড়িয়াখানা রমনাবাগানে রেখে পরীক্ষা করে দেখা হবে বলে সূত্রের খবর। 


এ বিষয়ে বর্ধমান অ্যানিমেল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির পক্ষে অর্নব দাস জানান , হলুদ রঙের ফিমেল কচ্ছপটি ইন্ডায়ান সফট সেল প্রজাতির । ছোটমাছ , শাক, সবজি এইসব এই প্রজাতির কচ্ছপ খায় । কচ্ছপটির আনুমানিক বয়স দেড় বছর হবে ।  

জালে ধরা পড়ার সময়ে কচ্ছপটির মুখে ও পায়ে আঘাত লোগেছে । চিকিৎসা করিয়ে কচ্ছপটিকে বনদপ্তরের হাতে তাঁরা তুলে দেবেন বলে জানিয়েছেন।