ভাগ্য ফেরাতে জেনে নিন চুল, নখ কাটার শুভ দিনক্ষণ

ভাগ্য ফেরাতে জেনে নিন চুল, নখ কাটার শুভ দিনক্ষণ

আজবাংলা   লকডাউনের কারনে এখন সবাই ঘরে বন্দি। কোন কাজ না থাকার জন্য অনেকেই ঘরে বসে মানসিক অবসাদে ভুগছে। এইজন্য আমাদের নিজেদেরকে নানান ভাবে কাজের মধ্যে রাখতে হবে। আমরা ঘরের মধ্যে থেকেই বাড়িঘর পরিস্কার পরিছন্ন রাখতে পারি।শুধু বাড়িঘর পরিস্কার রাখলেই হবে না, এর পাশাপাশি আমাদের নিজেদের কেও পরিস্কার পরিছন্ন ও যত্নে রাখতে হবে। নিজেদেরকে পরিস্কার পরিছন্ন রাখার অর্থ হল নিয়মিত চুল কাটা, দাড়ি কামানো ও সাথে হাত ও পায়ের নখ কেটে নিজেদের সুশ্রী রাখা। 

কিনতু হিন্দুশাস্ত্র মতে এই চুল, দাড়ি ও নখ কাটার নিদিষ্ট সময় ও দিন থাকে। বলা হয়ে থাকে, কোনও বিশেষ বা শুভ দিনে বাড়িতে চুল বা নখ কখনই কাটা উচিত নয়। আবার বলা হয়ে থাকে, সূর্য ডোবার পর নখ কাটলে বিপদ আসতে পারে। কিনতু কোন দিনটি সঠিক আর কোন দিনটি ভুল, এইনিয়ে মানুষের মনে ধন্দের শেষ নেই। আবার এমনও অনেকে আছে, যারা প্রশ্ন করে উত্তর পেয়েছেন কিনতু সেই উত্তরের পিছনের আসল যুক্তিটি পায়নি। আসুন জেনে নেওয়া যাক, কোন বিশেষ দিনগুলিতে চুল, নখ কাটা ঠিক হবে, ও কাটলে কি কি শুভ ফলাফল পেতে পারি?

১} সোমবার কে বলা হয়ে থাকে চন্দ্রের। ওইদিন মানুষের মস্তিষ্কের উপর চন্দ্রের ব্যাপক প্রভাব থাকে। তাই ওই দিন চুল বা নখ কাটা ঠিক হবে না। কেটে ফেললে তার প্রভাব পড়ে মানুষের মানসিক শান্তির উপর। এছাড়া, বাড়িতে ছোট শিশু ওপরেও শারীরিক অবস্থার উপরও এর প্রভাব পড়ে। আবার বলা হয়ে থাকে মঙ্গলবার চুল বা নখ কেটে ফেললে আয়ু কমে যেতে পারে।

২} বুধবার দিনটিতে বেছে নিন চুল বা নখ কাটার জন্য। ওইদিন কাটলে ধনদেবী মা লক্ষ্মীর আশীর্বাদ পাওয়া যায় বলে মনে করা হয়। বৃহস্পতিবার, এই দিনটিকে গুরুবারও হয়। এদিন খুবই শুভ হয়। ভগবান বিষ্ণুর দিন। এদিন চুল, নখ কাটা মানে মা লক্ষ্মীকে অসন্তুষ্ট করা। 

৩} শুক্রবার হল সৌন্দর্যের প্রতীক। এদিন চুল বা নখ কাটলে সাফল্য আসে। তাই এদিন চুল বা নখ সহজেই কেটে ফেলা যায়। এতে সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়। শনিবার দিনটি বড় ঠাকুরের দিন অর্থাৎ এই দিনটি শনিদেবকে উৎসর্গ করা হয়। এদিন চুল বা নখ কাটার অর্থ নিজের বিপদ নিজে ডেকে আনা। বলা হয়ে থাকে,  মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে কিছু কাটলে। সবশেষে আসে রবিবার, অর্থাৎ ছুটির দিন। অনেকটা সময় পাওয়া যায় হাতে। কিনতু শাস্ত্রমতে, এই দিনটি সূর্যদেবকে উৎসর্গ করা হয়। তাই এই দিনে চুল নখ কাটা অশুভ বলেই মনে করা হয়। সম্পত্তি, স্বাস্থ্য ভারসাম্যহীন হয়।