দীর্ঘ ২৪ বছর পর ‘অ-গান্ধী’ সভাপতিকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত কংগ্রেস

দীর্ঘ ২৪ বছর পর ‘অ-গান্ধী’ সভাপতিকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত কংগ্রেস

 দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান। আজই সভাপতি পেতে চলেছে দেশের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস (Congress President Election)। ২০১৯ সালে রাহুল গান্ধীর ইস্তফার পর থেকেই অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন সনিয়া গান্ধী। কিন্তু বারেবারেই একাধিক দলীয় কর্মী দলকে আরও সাংগঠিকভাবে মজবুত করার জন্য নতুন সভাপতির দাবি জানিয়েছিলেন।

সেই দাবি মেনেই চলতি সপ্তাহের সোমবার, ১৭ অক্টোবর কংগ্রেসের জাতীয় সভাপতি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হয়। আজ, ১৯ অক্টোবর সভাপতি নির্বাচনের ফল প্রকাশ হবে। কংগ্রেসের ১৩৭ বছরের ইতিহাসে এবার ষষ্ঠতম সভাপতি নির্বাচিত হতে চলেছেন। এর আগে ২০১৭ সালে রাহুল গান্ধী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কংগ্রেসের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

কিন্তু ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পরই সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেন তিনি। তবে এবারের নির্বাচনের আসল চমক ছিল, গান্ধী পরিবারের অংশ না নেওয়া। প্রত্যেকবারই কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচনে গান্ধী পরিবারের কোনও সদস্য অংশগ্রহণ করতেন। কিন্তু এবারে সনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী বা প্রিয়ঙ্কা গান্ধী- কেউই নির্বাচনে অংশ নেননি। দীর্ঘ ২৪ বছর পর গান্ধী পরিবারের বাইরের কেউ দলের সভাপতি হবেন।

এবারের কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচন হচ্ছে দুই প্রার্থীর মধ্য়ে। একদিকে রয়েছেন প্রবীণ নেতা তথা সাংসদ মল্লিকার্জুন খাড়্গে, অন্যদিকে রয়েছেন অপর সাংসদ শশী থারুর। কংগ্রেসের পরবর্তী সভাপতি কে হবেন, তা এই দুই নেতার মধ্যে থেকেই বেছে নেওয়া হবে। নির্বাচনের ফল নিয়ে আশাবাদী দুই নেতাই। অন্য়দিকে, ভোট গণনা নিয়েও প্রস্তুতি তুঙ্গে।

গতকাল, ১৮ অক্টোবরই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্যালট বাক্সগুলি কংগ্রেসের নয়াদিল্লির সদর দফতরে পৌঁছয়। বর্তমানে তা স্ট্রং রুমে রাখা রয়েছে। সকাল ১০টা থেকে ভোট গণনা শুরু হবে। দুপুর ৩টে বা ৪টে নাগাদ চূড়ান্ত ফলঘোষণা করা হতে পারে। কংগ্রেস সূত্রে খবর, নির্বাচনের ফল ঘোষণার সময় কংগ্রেসের সদর দফতরে উপস্থিত থাকবেন কংগ্রেসের দলনেত্রী তথা অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সনিয়া গান্ধী।

উপস্থিত থাকতে পারেন প্রিয়ঙ্কা গান্ধী। ভারত জোড়ো যাত্রায় সামিল হওয়ায় রাহুল গান্ধী উপস্থিত থাকতে পারবেন না। গান্ধী পরিবারের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ও রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটও এদিন দিল্লিতে আসবেন বলেই জানা গিয়েছে। আজ ফল প্রকাশ হলেও, দিওয়ালির পর কংগ্রেসের সভাপতি পদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।