মাস্ক না পরে শাস্তির কবলে খোদ প্রধানমন্ত্রীই!

মাস্ক না পরে শাস্তির কবলে খোদ প্রধানমন্ত্রীই!

প্রধানমন্ত্রী বলে ছাড় নেই। মাস্ক (Mask) না পরায় জরিমানার মুখে পড়তে হল থাইল্যান্ডের (Thailand) প্রধানমন্ত্রী প্রয়ুথ চান-ও-চা'কে। টিকা সংক্রান্ত একটি বৈঠকে তাঁকে দেখা গিয়েছিল মাস্ক না পরে থাকতে। সেই কারণেই ৬ হাজার বাহত (ভারতীয় মূল্যে ১৪ হাজার ৭২০ টাকা) জরিমানা দিতে হল তাঁকে। প্রসঙ্গত, থাইল্যান্ডে করোনা সংক্রমণ দ্রুত বাড়তে শুরু করায় রাজধানী ব্যাংকক-সহ ৪৮টি প্রদেশে সকলের জন্য মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

সোমবার সকালে টিকা সংক্রান্ত একটি জরুরি বৈঠকে অংশ নেন প্রায়ুথ। পরে তিনি তাঁর ফেসবুকে বৈঠকের একটি ছবি পোস্ট করেন। সেই ছবিতে পরিষ্কার দেখা যায়, বৈঠকে তাঁর মুখেই কেবল মাস্ক নেই! পরে সেই ছবি মুছেও দেওয়া হয়। কিন্তু সেই ছবি প্রকাশের পরই তাঁকে জরিমানা করার কথা ঘোষণা করেন ব্যাংককের গভর্নর অশ্বিন ওয়ানমুয়াং। ছবিটি দেখে প্রতিবাদ শুরু করেন নেটিজেনরাও। কেন প্রধানমন্ত্রী মাস্ক পরেননি, সেই প্রশ্ন তোলা হয়।

এরপরই জরিমানার সিদ্ধান্ত গভর্নরের। তার আগে তিনি কমেন্ট করে প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়ে দিয়েছিলেন, তিনি নিয়ম ভেঙেছেন। তবে এখনও পর্যন্ত থাইল্যান্ডে করোনার কবলে পড়েছেন ৫৭ হাজার ৫০৮ জন। মারা গিয়েছেন ১৪৮ জন। এই পরিস্থিতিতে সকলের জন্যই মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই নিয়ম ভাঙলে সর্বোচ্চ ২০ হাজার বাহত জরিমানা। তবে প্রধানমন্ত্রীর ক্ষেত্রে জরিমানা করা হয়েছিল ৬ হাজার বাহত।

তিনিই দেশের প্রথম ব্যক্তি যাঁকে এই অপরাধে জরিমানা দিতে হল। এদিকে ভারতের করোনা পরিস্থিতি দেখে থাইল্যান্ডে ভারতীয়দের প্রবেশে আপাতত নিষেধাজ্ঞা জারি করা হচ্ছে ১ মে থেকে। কেবল মাত্র সেদেশে যাওয়া থাইল্যান্ডের নাগরিকরাই দেশে ফেরার সুযোগ পাবেন। একই ভাবে অস্ট্রেলিয়া ভারত থেকে উড়ান বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী ১৫ মে পর্যন্ত কোনও ভারতীয় বিমান সেদেশে নামার অনুমতি পাবে না।