উত্তরপ্রদেশের পর এবার আদিবাসী গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ পশ্চিমবঙ্গে

উত্তরপ্রদেশের পর এবার আদিবাসী গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ পশ্চিমবঙ্গে

কালনা  উত্তরপ্রদেশের হাথরসে দলিত কন্যাকে গণধর্ষণের ঘটনার রেশ এখনও কাটেনি। এরমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে এক আদিবাসী গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গিয়ে গলায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে গণধর্ষণের ঘটনা সামনে এল।

অভিযোগের তির তিন দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাতে এই নারকীয় ঘটনাটি ঘটেছে কালনার নাদনঘাট থানা এলাকার সাকরা গ্রামে। গুরুতর অসুস্থ ওই গৃহবধুকে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যাচ্ছে ওই আদিবাসী বধূ শৌচকর্ম সেরে ঘরে ঢোকার মুখে তিনজন তাঁর গলায় ধারালো কাস্তে ঠেকিয়ে এক নির্জন স্থানে তুলে নিয়ে যায়। এরপরই তাঁর ওপর শারীরিক অত্যাচার চালানো হয়েছে।জানা যাচ্ছে, ওই বধূর মুখে কাপড় গুঁজে দেওয়ায় তিনি চিৎকার করতে পারেননি।

গণধর্ষণের পর ওই অবস্থাতেই তাঁকে সেখানে ফেলে পালায় দুষ্কৃতীরা। রাতেই কোনওরকমে বাড়ি ফেরেন তিনি। এরপরই পরিবারকে সব ঘটনা জানান ওই বধূ। গ্রামবাসীদের সাহায্যে বুধবার সকালে তাঁকে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ওই নির্যাতিতাকে।

খবর যায় নাদনঘাট থানায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। যদিও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এই ঘটনার পর এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা রয়েছে।