ধর্ষণ করে খুনের পর তরুণীর মৃতদেহের সঙ্গেও যৌনাচার!

ধর্ষণ করে খুনের পর তরুণীর মৃতদেহের সঙ্গেও যৌনাচার!

ধর্ষণের পর খুন। হত্যার পর বছর পঁচিশের তরুণীর মৃতদেহের সঙ্গে ফের যৌনাচার। ‘ঘৃণ্য’ অপরাধে গ্রেপ্তার যুবক। হায়দরাবাদ থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরের চৌটুপ্পাল শহরের ঘটনায় শিউরে উঠছেন প্রায় সকলেই। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  অভিযুক্ত নির্মাণ শিল্পের সঙ্গে যুক্ত। যেখানে কাজ করছিল ওই যুবক সেখান থেকে কিছুটা দূরে একটি গুদামে বাস করতেন তরুণী।

সঙ্গে থাকতেন তাঁর স্বামী। বছর পঁচিশের ওই তরুণীর স্বামী স্থানীয় একটি কলেজে নিরাপত্তারক্ষী হিসাবে কাজ করেন। তার ফলে তরুণীকে দীর্ঘক্ষণ একা থাকতে হত। সেই সুযোগকে কাজে লাগায় অভিযুক্ত। গত ৯ মে ওই যুবক তরুণীর কাছে যান। অভিযোগ, খুনের হুমকি দিয়ে ধর্ষণ করে সে। এরপর চলে যায়। কিছুক্ষণ পর আবার ফিরে আসে সে।

যুবক ভারী কোনও বস্তু দিয়ে তরুণীর মাথায় আঘাত করে। অভিযোগ, রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়েন তরুণী। কিছুক্ষণের মধ্যে মৃত্যু হয় তাঁর।  এখানেই শেষ নয়। অভিযোগ, ওই যুবক মৃত্যুর পরেও তরুণীর দেহের সঙ্গে যৌনাচার করে। এরপর তরুণীর কাছে থাকা সোনার গয়না লুট করে সে। ঘটনাস্থল ছেড়ে পালিয়ে যায় যুবক। কিছুক্ষণ পর মহিলার স্বামী ঘটনাস্থলে পৌঁছন।

মৃত স্ত্রীকে দেখতে পান তিনি। তরুণীর স্বামী পুলিশের দ্বারস্থ হয়। ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুযায়ী ধর্ষণ ও খুনের মামলা দায়ের করে পুলিশ। তরুণীর স্বামীর অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে। গত বুধবার মালকাপুর থেকে যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। চুরি যাওয়া গয়নাগাটিও উদ্ধার করেছেন তদন্তকারীরা।