মার্কিন ড্রোন হামলায় খতম আল কায়দা প্রধান অল জাওয়াহিরি

মার্কিন ড্রোন হামলায় খতম আল কায়দা প্রধান অল জাওয়াহিরি

৯/১১-এর (9/11 Attack) ঘটনার বৃত্ত সম্পূর্ণ। বিশ্বের অন্যতম বড় সন্ত্রাসবাদী হামলার মাস্টারমাইন্ড মার্কিন সেনার হাতে খতম। কাবুলে মার্কিন সেনার হাতে খতম আল কায়দা চিফ (Al-Qaeda chief) অয়মান অল-জওয়াহিরি (Ayman al-Zawahiri)। আফগানিস্তানের কাবুলে মার্কিন সেনার অভিযানে, ড্রোন হামলায় নিকেশ আল কায়দার অন্যতম মাথা এবং ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার (World Trade Center Attack) হামলার মূল চক্রী।

মৃত্যুর সময় জাওয়াহিরির বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।  জঙ্গি দমনে ফের বড় সাফল্য আমেরিকার। টুইট করে জঙ্গি নেতাকে খতমের খবর জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন (US President Joe Biden)। তিনি বলেন, অবশেষে ন্যায় বিচার। ৯/১১-এ জড়িত জঙ্গি নেতা অয়মান অল-জওয়াহিরি খতম। একইসঙ্গে বাইডেনের হুঁশিয়ারি, 'তুমি যেই হও না কেন, যেখানেই লুকিয়ে থাক না কেন।

আমাদের দেশের মানুষের জন্য তুমি বিপজ্জনক হলে তোমাকে আমেরিকা ঠিক খুঁজে বার করবে এবং শেষ করবে। তাতে কত দেরি হল, সেটা বড় কথা নয়, কোথায় লুকিয়ে থাকার চেষ্টা করেছিলে, তাতেও কিছু যায় আসে না।' জানা গিয়েছে আমেরিকার স্থানীয় সময় অনুযায়ী রবিবার ভোর রাতে কাবুলে আল কায়দা নেতার গোপন ডেরায় হামলা চালায় মার্কিন সেনা।

 ২০১১ সালের মে মাসে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে মার্কিন সেনার ও ন্যাটোর অভিযানে ওসামা বিন লাদেনের (Osama Bin Laden) মৃত্যু হয়। লাদেন নিহত হওয়ার পর, তাঁর উত্তরসূরি হিসেবে আল-কায়দার প্রধান নিযুক্ত হন অয়মান অল-জওয়াহিরী। যিনি পেশায় ছিলেন একজন চিকিত্‍‌সক। ১৯৮১ সালে মিশরীয় রাষ্ট্রপতি আনোয়ার সাদাতের হত্যাকাণ্ড দিয়েই সন্ত্রাসবাদে হাতে খড়ি তাঁর।

ক্রমে জঙ্গি কার্যকলাপে জড়িয়ে পড়েন। গড়ে তোলেন মিশরীয় ইসলামিক জিহাদ (Egyptian Islamic Jihad), EIJ নামে একটি সংগঠন।  দু দশক ধরে আমেরিকার 'মোস্ট ওয়ান্টেড' জঙ্গি তালিকায় নাম ছিল ৯/১১-এর অন্যতম অয়মান অল-জওয়াহিরীর। ওসামার উত্তরসূরির বিরুদ্ধে আমেরিকার বাইরে মার্কিনিদের হত্যা ও খুনের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার গত ২০ বছর ধরে তাঁর খোঁজ চালাচ্ছিল। সন্ধান পেতে মাথার দাম ধার্য করা হয়েছিল ২৫ মিলিয়ন ডলার।