রাজ্যে খুলতে চলেছে সমস্ত স্কুল! জানালেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

রাজ্যে খুলতে চলেছে সমস্ত স্কুল! জানালেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

শিক্ষামন্ত্রী আগেই জানিয়েছিলেন ফেব্রুয়ারি মাসে খুলবে স্কুল। এবার দিন ঘোষণা করলেন তিনি। জানালেন, ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী শুরু হবে স্কুল। তবে প্রত্যেককে ব্যবহার করতে হবে মাস্ক, স্যানিটাইজার। মঙ্গলবার বিকেলে সাংবাদিক বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেখানেই তিনি জানান, আগামী ১২ তারিখ থেকে স্কুল খোলার চিন্তাভাবনা করছে রাজ্য। আপাতত নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে। ৩ ফেব্রুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা ও স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলেও জানিয়েছেন।

স্কুল খোলার পাশাপাশি এদিন রাজনীতি নিয়েও আলোচনা করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। নাম না করেই আক্রমণ করেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, শুভেন্দু অধিকারী, শোভন চট্টোপাধ্যায়- সহ দলত্যাগীদের। বলেন, 'যাঁরা গিয়েছে উন্নয়নকে অবজ্ঞা করে গিয়েছে। ' তবে রাজনীতির ময়দানে দাঁড়িয়ে কুকথার যে চল বর্তমানে হয়েছে, তাঁর প্রতিবাদ করেন শিক্ষামন্ত্রী। বলেন, 'মতপার্থক্য থাকতেই পারে, তার জন্য কুভাষা ব্যবহার করা কোনওভাবে কাম্য নয়। যদি তৃণমূলের কেউ এহেন আচরণ করেন, সেক্ষেত্রেও যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।' 

এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় ফের ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দেন, লাগাতার দলত্যাগ ভোটের বাক্সে কোনও প্রভাবই ফেলতে পারবে না। তাঁর কথায়, 'মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক সমুদ্র। সেখান থেকে সামান্য জল তুলে নেওয়া হলে কোনও সমস্যাই হবে না।' তাঁর দাবি, দলত্যাগীরা যে মোহে পতাকা বদলেছেন, দ্রুতই তা কেটে যাবে। এদিন দক্ষিণ ২৪ পরগনার সভায় যাওয়ার পথে শুভেন্দু অধিকারীকে কালো পতাকা দেখানো নিয়ে প্রশ্ন করতেই মেজাজ হারান পার্থ। সাংবাদিকদের প্রতি বিরক্তি প্রকাশ করে বলেন, 'রাজ্যে এত উন্নয়নমূলক কাজ হচ্ছে, কখনও তো তা নিয়ে প্রশ্ন করেন না। শুধুমাত্র কারা গেল, কারা কালো পতাকা দেখালো, তা নিয়ে ব্যস্ত, আমি সবটাই বুঝি।'

উল্লেখ্য, গত বছরের মার্চ মাস থেকে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে তালা ঝুলেছে। কোভিডের প্রকোপ কিছুটা কমতে গত বছরের শেষের দিকে কয়েকটি রাজ্যে স্কুল খোলা হয়। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অনলাইনে চলছিল পড়াশোনা। ফলে প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষা দিতে গিয়ে পড়ুয়ারা বেজায় বিপাকে পড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল। সে কথা মাথায় রেখে বিভিন্ন রাজ্যে দশম ও দ্বাদশশ্রেণির পড়ুয়াদের ক্লাস চালু করা হচ্ছে। এবার তাদের পরীক্ষার দিনক্ষণ ঘোষণা করল বোর্ড। তবে পড়ুয়াদের চাপ কমাতে আগেই প্রতিটি বিষয়ের সিলেবাস ৩০ শতাংশ কমানো হয়েছে।