বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকাদের ফাঁড়া কাটানোর সহজ উপায়

বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকাদের ফাঁড়া কাটানোর সহজ উপায়

বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকারা নিজেদের সুরক্ষার জন্য কী উপায় অবলম্বন করবেন দেখে নেওয়া যাক। প্রথমত দেখে নেওয়া যাক উপায়টি সম্পন্ন করতে কী কী সামগ্রী প্রয়োজন।  এই উপায় করার জন্য প্রথমেই প্রয়োজন হবে একটি নারকেল।এরপর রুমালের চেয়ে বড় মাপের একটি লাল রঙের কাপড় নিন যাতে নারকেলটি বাঁধা যায়। অল্প সাদা চন্দন, অল্প কেওড়া জল, অল্প মেটে সিঁদুর ও ঘি নিন প্রয়োজন মতো।

এ বার জেনে নিন উপায়টি কী ভাবে সম্পন্ন করবেন: যে কোনও মঙ্গলবার থেকেই এই উপায় শুরু করা যায়।মঙ্গলবার সকালে স্নান করে শুদ্ধ বস্ত্র পরে ঠাকুর ঘরে গিয়ে নিজেকে এবং সামগ্রীগুলোকে গঙ্গাজল ছিটিয়ে শুদ্ধ করে নিন। এরপর একটি বাটিতে সাদা চন্দন ও কেওড়ার জল মিশিয়ে একটি লেই তৈরি করুন। তার পর নারকেলের ওপর এই প্রলেপ লাগান।

দেখবেন যেন পুরো নারকেলটিতে লাগানো হয় এবং নারকেলের কোনও অংশ যেন বাদ না যায়। তারপর নারকেলটিকে লাল কাপড়ে বেঁধে ঠাকুরের সামনে রাখুন।এ বার একটি ছোট ডিশে অল্প মেটে সিঁদুর ও ঘি মিশিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে নিন।তার পর অনামিকা দিয়ে ঘি মিশ্রিত সিঁদুরের টিপ কাপড়ে বাঁধা নারকেলটির উপরে দিন এবং নিজের মনের কষ্টের কথা ঠাকুরের কাছে জানিয়ে ধূপ ও দীপ দেখান। নারকেলটি ঠাকুরের সামনে রেখে দিন।

আবার পরের দিন অনামিকা দিয়ে কাপড়ে বাঁধা নারকেলের উপর টিপ দিন। মনের কষ্ট বলুন ও ধূপ-দীপ দেখান। এই ভাবে ২৭ দিন করবেন। মহিলারা ঋতুস্রাবের দিনগুলিতে এই কাজ করবেন না। তারপর ২৮ দিনের মাথায় কাপড়ে বাঁধা নারকেলটি ঠাকুরের আসন থেকে তুলে মনস্কামনা জানিয়ে পুকুরে বা নদীতে বিসর্জন দিন। 

(বিশেষ দ্রষ্টব্য: প্রয়োজন হলে এই উপায় তিন মাস, ছয় মাস, এবং এক বছর পরেও করতে পারেন। আশা করা যায় আপনি অবশ্যই সাফল্য পাবেন।)