এই রাশির মানুষদের বয়স যতই বাড়ুক এঁদের মধ্যে শিশু সুলভ আচরণ এবং বুদ্ধি অপরিণত থেকেই যায়

এই রাশির মানুষদের বয়স যতই বাড়ুক এঁদের মধ্যে শিশু সুলভ আচরণ এবং বুদ্ধি অপরিণত থেকেই যায়

আজবাংলা     আমরা আমাদের চারপাশে প্রচুর মানুষ দেখে থাকি। যাদের স্বভাব ভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে। কেউ বেশি কথা বলে কেউ কম কথা বলে, কেউ খুব হাসতে ভালবাসে কেউ গম্ভীর থাকতে পছন্দ করে, কেউ চঞ্চল কেউ বা শান্ত এরকম ভিন্ন স্বভাবের মানুষ আমরা দেখে থাকি। সেরকম কিছু মানুষ রয়েছে যাঁদের মধ্যে খুব কম বয়সেই প্রবল বুদ্ধিমত্তা লক্ষ্য করা যায় আবার এমন কিছু মানুষ রয়েছে যাঁদের বয়স বাড়ার সঙ্গে বুদ্ধি অপরিণতই থেকে যায় অর্থাৎ বেশি বয়সেও তাঁদের মধ্যে শিশু সুলভ আচরণ থেকেই যায়। তবে অবশ্যই এরকম হয় রাশির প্রভাবের জন্য।

দেখে নেওয়া যাক কোন কোন রাশির মধ্যে এরকম আচরণ লক্ষ্য করা যায়---

 মিথুন : মিথুন রাশির মানুষদের যতই বয়স বাড়ুক এরা শিশুদের মতো আচরণ করতেই থাকে। যে পরিবেশেই থাকবে সেখানে সকলকে হাসি আনন্দে মাতিয়ে রাখবে। কোনও বিষয়ে খুব বেশি গুরুত্ব দিতে চায় না। ঝুট ঝামেলা থেকে বেশ দূরত্ব বজায় রাখে।

মেষ : মেষ রাশির মানুষরা বন্ধুত্ব করতে খুব পটু এবং মিশুকে প্রকৃতির হয়। অতি ছোটখাটো বিষয়েই চট করে রেগে যায় এবং নিজের স্বভাব বদলে ফেলে যার ফলে তখন শিশুদের মতো আচরণ করতে থাকে।

কর্কট : এই রাশির মানুষরা ছোটদের মতো একটুতেই রাগ করে। এঁদের মতের বিরুদ্ধে কিছু এরা একেবারেই সহ্য করতে পারে না। বয়স যতই বৃদ্ধি হোক না কেন স্বভাব শিশুদের মতই থেকে যায়।

 মীন : মীন রাশির মানুষরা আবেগী এবং বাস্তববাদী হয়। এরা একটু দুঃখ পেলেই খুব সহজে শিশুদের মতো কেঁদে ফেলে। এই রাশি নিজের ভাবে থাকতে বেশি পছন্দ করে। বেশি বয়সেও এরা ছোটদের মতো আচরণ করে।