রামমন্দির তৈরির জন্য দেশ জুড়ে ৪৫ দিনেই উঠল ২,১০০ কোটি

রামমন্দির তৈরির জন্য দেশ জুড়ে ৪৫ দিনেই উঠল ২,১০০ কোটি

অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের জন্য দেশ জুড়ে ২ হাজার ১০০ কোটি টাকা ইতিমধ্যেই সংগ্রহ করা হয়ে গিয়েছে। ‘রাম মন্দির নিধি সমর্পণ’ প্রচারের ইতি ঘোষণা করে শনিবার এ কথা জানিয়েছে অর্থ সংগ্রহের কাজ করেছেন এমন বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের পশ্চিমবঙ্গ সংগঠনের পক্ষ থেকে সম্প্রতি জানানো হয়েছিল, এ রাজ্যে অর্থসংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করা হয়েছিল ৫০ কোটি।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি সেই লক্ষ্য পূরণ করেছে পরিষদ। তখনই দেশ জুড়ে সংগৃহীত অর্থের পরিমাণ দেড় হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছিল। মার্চ পয়লায় সেই সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়াল ২,১০০ কোটি টাকায়। মূলত বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতৃত্বে গত বছর মকর সংক্রান্তির সময় এই অর্থ সংগ্রহের কাজ শুরু হয়। দীর্ঘ সময় ধরে চলা এই কাজকে এক অসাধারণ অভিজ্ঞতা বলে বর্ণনা করেছে পরিষদ।

সংগঠনের কার্যনির্বাহী সভাপতি অলোক কুমার বলেছেন, ‘‘দেশের ৪০ লক্ষ কার্যকর্তা, ১০ লক্ষ দল তৈরি করে পৃথিবীর এই বৃহত্তম প্রচার ও অর্থ সংগ্রহ অভিযান চালিয়েছেন। তাঁরা পৌঁছে গিয়েছিলেন দেশের বিভিন্ন শহর, গ্রামে মানুষের দরজায় দরজায়। যে ভাবে সাধারণ মানুষ ভগবান রাম-এর প্রতি তাঁদের ভক্তি প্রদর্শন করেছেন, তা অবাক করেছে সকলকে।’’

 যখন এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছিল, তখন কথা ছিল মোট ১ হাজার ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করা হবে। কিন্তু সাধারণ মানুষের বিপুল অংশগ্রহণের ফলে সংগৃহীত অর্থের পরিমাণ ২ হাজার ১০০ কোটি টাকায় পৌঁছে গিয়েছে। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘‘দেশের প্রথম নাগরিক থেকে শুরু করে একেবারে পথবাসী দরিদ্র মানুষটিও রাম মন্দির তৈরির কাজে নিজের সামান্য সঞ্চয় থেকে অর্থ সাহায্য করেছেন।’’  

গত জানুয়ারি মাসের ১৫ তারিখে মন্দির নির্মাণের জন্য ৫ লক্ষ ১০০ টাকা তুলে দেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এরপর নানা মহল থেকে রামমন্দির নির্মাণের টাকা এসেছে। দিয়েছেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, সাংসদ গৌতম গম্ভীর-সহ অনেকেই।