অনুপ্রবেশের ছক বানচাল, পঞ্জাবে সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে খতম দুই জঙ্গি

অনুপ্রবেশের ছক বানচাল, পঞ্জাবে সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে খতম দুই জঙ্গি

নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে জঙ্গিদের অনুপ্রবেশের চেষ্টা ফের ভেস্তে দিল সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। বৃহস্পতিবার ভোররাতে পঞ্জাবে, ভারত-পাকিস্তান আন্তর্জাতিক সীমান্ত (আত্তারি সীমান্ত) বরাবর বিএসএফ-এর গুলিতে নিকেশ হয়েছে দু'জন সন্দেহভাজন জঙ্গি।

নিহত জঙ্গিদের দেহের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র। বিএসএফ সূত্রের খবর, ঘন কুয়াশার মধ্যেই বৃহস্পতিবার ভোররাতে আত্তারি সীমান্ত বরাবর সন্দেহজনক গতিবিধি নজরে আসে। তত্‍ক্ষণাত্‍ গুলি চালান (ভোররাত ২.৩০ মিনিট নাগাদ আত্তারি ফ্রন্টে সশস্ত্র দুই সন্দেহভাজন জঙ্গিকে গুলি করা হয়) কর্তব্যরত বিএসএফ জওয়ানরা।

পরে আত্তারি সীমান্ত থেকে দু'জন সন্দেহভাজন জঙ্গির দেহ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার করা হয় আগ্নেয়াস্ত্র। প্রায় ২৪ ঘন্টা ধরে গুলির লড়াই চলে। পরে গুলি চালানো বন্ধ করে পাকিস্তান। তবে শুধু এদিনই নয়, চলতি বছরে একাধিকবার সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান।

গত সপ্তাহেও পুঞ্চ জেলার মানকোটে সেক্টরে পাক সেনা ভারি গুলি বর্ষণ শুরু করে। এরই সঙ্গে চলে শেলিং। স্থানীয় গ্রামগুলি লক্ষ্য করে গুলি ও মর্টার ছোঁড়া হয় বলে খবর। বিনা প্ররোচনায় পাক সেনা গুলি চালায় বলে জানা গিয়েছে। প্রায় দু ঘন্টা ধরে টানা গুলির লড়াই চলে।

এদিকে, কিছুদিন আগেই চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত বললেন সীমান্তে যে কোনও ধরণের চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে প্রস্তুত ভারত। এদিন রাওয়াত বলেন পাকিস্তান ও চিনের মোকাবিলা করতে পিছপা হবে না ভারত।

দেশের জওয়ানরা তৈরি রয়েছে যে কোনও পরিস্থিতি সামলানোর জন্য। ভারতীয় সেনা যেমন সীমান্তে তৈরি, তেমনই পুরোপুরি প্রস্তুত নৌসেনা ও বায়ুসেনা। উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি সম্পন্ন করে। তবে তা কখনই মেনে চলে না পাকিস্তান। বারবারই পাক সেনা বিনা প্ররোচনায় গুলি বর্ষণ শুরু করে।