যৌনাঙ্গে বোতল ঢুকিয়ে নির্যাতন! গ্রেপ্তার দুই মহিলা-সহ ৬ বাংলাদেশী নাগরিক!

যৌনাঙ্গে বোতল ঢুকিয়ে নির্যাতন! গ্রেপ্তার দুই মহিলা-সহ ৬ বাংলাদেশী নাগরিক!

ফের প্রকাশ্যে নারী নির্যাতনের মর্মান্তিক ঘটনা। এবার তরুণীকে গণধর্ষণ (Gang Rape) করে তাঁর যৌনাঙ্গে বোতল ঢুকিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল। বেঙ্গালুরুর ঘটনার এই ভিডিও বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। এই ঘটনায় ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ভিডিওয় দেখা গিয়েছে, বছর বাইশের ওই তরুণীর উপর শারীরিক অত্যাচার করছে সকলে। সেই দলে ছিল ২জন মহিলাও।

তাঁর গোপনাঙ্গে বোতল ঢুকিয়ে দিতেও দেখা গিয়েছে। এই ভিডিও সামনে আসার পরই ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ধর্ষণের ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ মনে করছে অভিযুক্তরা বাংলাদেশে বাসিন্দা। আর্থিক বচসার জেরে ওই তরুণীর উপর অত্যাচার করা হয়েছে বলেও মনে করা হচ্ছে।

নির্যাতিতাকে পাচার জন্য ভারতে এনে অত্যাচার চালানো হয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। পুলিশ জানিয়েছেন, নির্যাতিতা এখন অন্য রাজ্যে রয়েছেন। ওই তরুণী অসমের বাসিন্দা হতে পারেন বলেই মনে করা হচ্ছে। তাঁর বয়ান পাওয়ার পরই ঘটনার নিষ্পত্তি করা সম্ভব হবে বলেই মনে করছেন আধিকারিকরা।এছাড়া, কেরলে বাংলাদেশি এক তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

ওই ঘটনার ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়ে যায়। ভাইরাল (Viral video) হওয়া ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, বছর বাইশের ওই তরুণীকে একসঙ্গে জনা চারেক যুবক নির্যাতন করছে। সেখানে এক মহিলার উপস্থিতও দেখা যায়। উপকমিশনার শহিদুল্লাহ জানান, সাইবার পেট্রলিংয়ের অংশ হিসেবে ভিডিওটি পুলিশের নজরে আসে। তিনি বলেন, যৌন নির্যাতনকারী একজনের চেহারার সঙ্গে মগবাজার এলাকার এক যুবকের ফেসবুকে পোস্ট করা ছবির মিল পাওয়া গিয়েছে।

ওই আইডি ধরে তার পরিচয়ও জানা যায়। এরপর ওই যুবকের মাকে ভিডিওটি দেখালে প্রথমে তিনি ছেলের পরিচয় দিতে অস্বীকার করেন। পরে স্বীকার করে বলেন, ভিডিওতে তার ছেলে রিফাতুল ইসলাম হৃদয়কেই দেখা যাচ্ছে।