তৃণমূল–বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র ভাটপাড়া

তৃণমূল–বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র ভাটপাড়া

 ফের রণক্ষেত্র ভাটপাড়া (Bhatpara)। ভাটপাড়ায় তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ (TMC-BJP Clash)।বিজেপি সাংসদ (BJP MP) অর্জুন সিংহ (Arjun Singh) যেতেই উত্তেজনা।ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশ বাহিনী। নেতাজীর মূর্তিতে মাল্যদান ঘিরে অশান্তি। অর্জুন সিংহ মাল্যদান করতে যেতেই অশান্তি শুরু হয়। বিজেপি সাংসদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। তৃণমূলের অভিযোগ, অশান্তি ছড়াতেই এসেছেন অর্জুন সিংহ।

সাংসদ নিরাপত্তারক্ষীদের নিয়ে তৃণমূল কর্মীদের ওপর চড়াও হন। তিনি এলাকায় অশান্তি ছড়িয়েছেন। সামনে পুরভোট। সেজন্য এলাকায় এভাবে গোলমাল পাকানোর চেষ্টা করছেন। অন্যদিকে, অর্জুন সিংহর অভিযোগ, তিনি ও বিজেপি বিধায়ক পবন সিংহ  মালা দিতে এলে তাঁদের বাধা দেওয়া হয়। তৃণমূল কর্মীরা তাঁদের ওপর চড়াও হয়।তৃণমূলের দাবি, পুরভোটের আগে দুষ্কৃতী-রাজ কায়েম করে নিজের প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করছেন অর্জুন।

পাল্টা বিজেপি সাংসদের অভিযোগ, শাসক দলের নেতারা অশান্তি পাকিয়েছেন এবং তাঁর ওপর হামলা চালিয়েছে তৃণমূল কর্মীরা।  সিআইএসএফ বেশ কয়েকরাউন্ড গুলি চালায়। তৃণমূল কর্মীদেরও মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলে দুপক্ষের ধস্তাধস্তি ও বচসার ছবি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। নিরাপত্তা কর্মীরা কোনওক্রমে অর্জুন সিংহকে সরিয়ে নিয়ে যান। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে।

এই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন। তিনি বলেছেন, একজন সাংসদকে নেতাজীর মূর্তিতে মাল্যদান করতে বাধা দেওয়া হল। এই ঘটনায় এ রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার অবনতির বেহাল দশাই ফুটে উঠেছে।  অর্জুন সিংহ বলেছেন, পুরো ঘটনার কথা তিনি লোকসভার অধ্যক্ষ, রাজ্যপালকে জানিয়েছেন।

অন্যদিকে, তৃণমূল বিধায়ক পার্থ ভৌমিক বলেছেন, অর্জুন সিংহ এখন অপ্রাসঙ্গিক হয়ে গিয়েছেন। তাই প্রাসঙ্গিকতা ফিরে পেতে অশান্তি তৈরির পথে হাঁটছেন। তৃণমূলের অভিযোগ, তাঁদের দলের নেতারা নেতাজীর মূর্তিতে মালা দিচ্ছিলেন। সেই সময় সাংসদ এসে গালিগালাজ করে। তাঁর নিরাপত্তা রক্ষীরা সাত রাউন্ড গুলি চালায় বলেও তৃণমূলের অভিযোগ। পাল্টা তৃণমূলের বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগ এনেছে বিজেপি।