জেনে নিন করলার চা এর উপকারীতা

জেনে নিন করলার চা এর উপকারীতা

করলা খেতে অনেক মানুষের ই ভাললাগে না। কিন্তু এতে রয়েছে অনেকখানি পুষ্টি। সেইকারণে বিভিন্ন পানীয়ও সবজির জুসের পুষ্টিগুণ বৃদ্ধির জন্য তাতে করলা মেশানো হয়ে থাকে।রান্না ছাড়া ও পুুষ্টিবিদরা বলেন করলার উপকারিতা ভালোভাবে নেয়ার জন্য পান করতে বলেছেন করলার তিতা চা।করলার চায়ের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক—

রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ:- রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে বলে প্রাচীনকাল থেকেই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে করলার ব্যবহার হয়ে আসছে।করলার চা খেলে আপনি নিজের ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। 

কোলেস্টেরল কমায়:- এই  চা রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। যার ফলে শরীর সুস্থ থাকে। 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে:-  এই চা এ রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। যা সমস্ত ইনফেকশনের হাত  থেকে রক্ষা করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

লিভার সুস্থ রাখে:- লিভার শরীরের বিষাক্ত পদার্থ বের করে শরীরকে সুস্থ রাখে।  এই চা লিভার সুস্থ রাখে ও বদহজম রোধ করে। 

দৃষ্টিশক্তি:- এই চা এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ। যা দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। 

করলার চা তৈরীর পদ্ধতি:- কিছু পরিমাণ শুকনো বা তাজা করলার টুকরো, জল এবং মিষ্টির জন্য স্বাদ মতো মধু নিন।জল ফুটিয়ে নিন, তার মধ্যে শুকনো করলার টুকরা দিয়ে ১০ মিনিট মাঝারি আঁচে ফোটান যাতে করলার সমস্ত গুনাগুণ জলে মিশে যায়। আঁচ থেকে নামিয়ে আরও কিছুক্ষণ ঢেকে রাখুন। এরপর কাপে চা ছেঁকে নিন এবং মিষ্টির জন্য মধু মেশান। তৈরি হয়ে গেল আপনার করলার চা। হাইপোগ্লাইসেমিয়ারোগীর ক্ষেত্রে করলার কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। তাই করলার চা আপনার প্রতিদিনের ডায়েটে ব্যবহার করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।