রুপচর্চায় লেবুর উপকারিতা

রুপচর্চায় লেবুর উপকারিতা

রূপচর্চায় লেবুর জুড়ি নেই। রুপ চর্চায় লেবুর ব্যবহার আজ থেকে হয়নি। প্রাচীন মিশর এবং গ্রীসের রাজকুমারীরাও লেবুর সমাদর করতেন। লেবুকে তারা তাদের রূপচর্চার একটি বিশেষ উপকরণ হিসাবে ব্যবহার করতেন। জেনে নিন ত্বকের কী কী সমস্যায় লেবু ব্যবহার করবেন —

 ত্বকের তৈলাক্তভাব কাটাতে  :  তৈলাক্ত ত্বক থেকে রক্ষা পেতে ব্যবহার করতে পারেন লেবুর রস। ঘুমাতে যাওয়ার আগে তুলোর সাহায্যে লেবুর রস মুখে লাগান এবং পরদিন সকালে উঠে ধুয়ে ফেলুন।  দিনেও লেবুর রস ব্যবহার করতে পারেন। এর ফলে আপনার মুখের তৈলাক্তভাব অনেক কম হবে। 

কালচেভাব দূর করতে  : কনুই ও হাঁটুর অনেকেরই কালচে প্রকৃতির হয়। এই দাগ হালকা করতে এসব জায়গায় লেবু ও লবণের মিশ্রণ ঘষুণ। ভিটামিন এ এবং সাইট্রিক অ্যাসিড এক্ষেত্রে চমৎকার কাজ করে।  সপ্তাহে দু তিনবার লেবু ও লবণের মিশ্রণ কালচে স্থানে ব্যবহার করুন।এটি ব্যবহারের ফলে আপনার কালচে ভাব অনেকাংশে দূর হবে। 

দাঁতে ব্যবহার  :  দাঁত সাদা করতে লেবু বেশ কার্যকর। বেইকিং সোডা ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন এবং তা দাঁতের ওপরে পাতলা করে প্রলেপ দিয়ে রাখুন। এরপর টুথব্রাশের সাহায্যে দাঁত মেজে নিন এবং পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে ফেলুন। দাঁত পুরোপুরিভাবে সাদা হয়ে যাবে। 

ব্রণ দূর করতে  : ব্রণ দূর করতেও লেবু খুব উপকারী। লেবুর খোসায় মধু লাগিয়ে তা দিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করলেই ধীরে ধীরে ব্রণর সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। 

চুলের যত্নে  :  মাথার ত্বক তৈলাক্ত ও চুল শুষ্ক হলে মাথার ত্বক ঘেমে যাওয়ার প্রবণতা থাকে বেশিরভাগ মানুষের। শ্যাম্পুর সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে ব্যবহার করুন। এতে আপনার চুল পরিস্কার থাকবে। 

নখ ভালো রাখতে  :  নখ ভালো রাখতে লেবু চমৎকার কার্যকারী। লেবুর রস নখ নরম রাখে এবং খসখসে ভাব কমায়। একটি পাত্রে লেবুর রস নিয়ে আঙুল চুবিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। এবার ১৫ মিনিট পর পরিষ্কার জলে ধুয়ে নিন। এর ফলেই নখ ভালো থাকবে।