অবশেষের পুলিশের জালে ৬৬ টি ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্ত বাংলার ডেলিভারি বয়

অবশেষের পুলিশের জালে ৬৬ টি ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্ত বাংলার ডেলিভারি বয়

কজন দু'জন নয়, অন্তত ৬৬ জন মহিলাকে ধর্ষণের অভিযোগ  তার বিরুদ্ধে। অবশেষের পুলিশের জালে ব্যান্ডেল নিবাসী  ডেলিভারি বয় বিশাল ভর্মা। চুঁচুড়ার বাসিন্দা এক মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার রাতে কেওটা ত্রিকোন পার্ক এলাকায় হানা দিয়ে বিশালকে গ্রেফতার করে  চুঁচুড়া থানার পুলিশ।

অভিযোগ জিনিসপত্র ডেলিভারি পর মহিলাদের ফোন নং হাতিয়ে যোগাযাগ তৈরি করত সে। দিনের পর দিন ভিডিও কল করে নানা মহিলার ছবি তুলে রাখত বিশাল। তারপর শুরু হত ব্ল্যাকমেল করা। বিশাল বর্মার এক বন্ধু সুমন মণ্ডলকেও এই কুকীর্তিতে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চূুঁচুড়ার ওই মহিলাকে ফ্লিপকার্টের ডেলিভারি দিতে গিয়েছিল বিশাল।

কথায় কথায় ফিডব্যাকের নামে ফোন নং চেয়ে নেয় সে। সেখান থেকেই মেসেজ করে বন্ধুত্ব। তারপর ভিডিও কলে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে দুজনের। ওই মহিলার অভিযোগ, এরপর ওই ভিডিও কলের স্ক্রিনশট দেখিয়েই ব্ল্যাকমেল করে তাঁকে বাড়িতে ডাকে ছেলেটি। চলে নির্মম ধর্ষণ। এখানেই ক্ষান্ত না হয়ে বন্দুক দেখিয়ে সমস্ত গয়নাও হাতিয়ে নেয় সে।

সেই ওই মহিলাকে বলে, এটি তার ৬৬ নং শিকার। অর্থাৎ এর আগে ৬৫ জনের সঙ্গে এই কাণ্ড ঘটিয়েছে সে। কথা না মানলে আরও ধর্ষণের হুমকি দেয় সে।  শনিবার রাতে চূুঁচুড়া থানার পুলিশ প্রায় হাতেনাতে ধরে তাকে। সেসময় সে এক মহিলাকে সামনে দাঁড় করিয়ে একই রকম ভাবে শাসাচ্ছিল।

গোটা ঘরে তল্লাশি করে অসংখ্য মহিলাদের ছবি পেয়েছে। বিশালের মোবাইলে রয়েছে এমন অজস্র ভিডিও যেখানে সে বন্দুক তাক করে মহিলাদের শাসাচ্ছে। ধৃতের কাছ থেকে বেশ কয়েকটি মোবাইল চিপও উদ্ধার করেছে পুলিশ।