পাকিস্তানে প্রশিক্ষণ নিয়ে ফিরেছে ১৪-১৫ জন বাঙালি জঙ্গি

পাকিস্তানে প্রশিক্ষণ নিয়ে ফিরেছে ১৪-১৫ জন বাঙালি জঙ্গি

দেশের তিন রাজ্য থেকে মোট ৬ জন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করল দিল্লি পুলিশের বিশেষ শাখা। দিল্লি এবং উত্তর প্রদেশ দু'জন করে জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ছাড়াও রাজস্থান থেকে আরও চারজনকে গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিশ (Delhi Police)। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দিল্লি পুলিশ সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়েছে, ধৃতদের জেরা করে উঠে এসেছে।

ধৃত ছ' জনের মধ্যে দু'জন পাকিস্তান থেকে জঙ্গি প্রশিক্ষণ নিয়ে এসেছে। তারা জানিয়েছে, পাকিস্তানে (Pakistan) প্রশিক্ষণ নিয়েছে আরও ১৪-১৫ জন বাংলাভাষী ভারতীয় নাগরিক (Bengali Terrorists Training in Pakistan)। এই তথ্য জানতে পেরে চক্ষুচড়কগাছ দিল্লি পুলিশের বিশেষ শাখার আধিকারিকদের। পাকিস্তানের প্রশিক্ষণ নেওয়া জঙ্গিদের বাংলা-যোগের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না তদন্তকারী আধিকারিকরা।

দিল্লি পুলিশের তরফে আরও জানানো হয়েছে, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ ও রাজস্থানে অভিযান চালিয়ে ছ'জন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছে তাদের বিশেষ শাখার আধিকারিকরা। এদের মধ্যে দু'জন সম্প্রতি পাকিস্তানে প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশে ফিরে এসেছিল। দিল্লি-সহ দেশের বিভিন্ন শহরে আসন্ন উত্‍সবের মরশুমে প্রাণঘাতী ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটানোর ছক কষছিল তারা।

স্পেশ্যাল সেলের সিপি নীরজ ঠাকুর জানিয়েছেন, "বিভিন্ন সংগঠনের সন্ত্রাসবাদী মডিউল সম্পর্কে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে দিল্লি, রাজস্থান এবং উত্তরপ্রদেশে বড় মাপের অভিযান শুরু করে পুলিশ। সফল অভিযানে তিন রাজ্য থেকে মোট ৬ জন জঙ্গিকে ধরা হয় তাদের কাছ থেকে বেশকিছু বিস্ফোরক এবং আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তাছাড়া ধৃত জঙ্গিদের জেরা করে উঠে এসেছে একাধিক চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গিয়েছে, ধৃত ছয় জঙ্গির মধ্যে দু'জন পাকিস্তানে প্রশিক্ষিত।

১৪-১৫ জন বাংলাভাষী একই ভাবে জঙ্গি প্রশিক্ষণ নিয়েছে (Bengali Terrorists Training in Pakistan)। দিল্লি পুলিশের বিশেষ শাখার আধিকারিকরা জানিয়েছেন, 'গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গত কয়েকদিন ধরে বিশেষ অভিযান চালিয়ে উত্তরপ্রদেশ এটিএস-এর সাহায্যে তিন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাজস্থানের কোটায় ট্রেন থেকে একজন জঙ্গি গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এছাড়াও দিল্লি থেকে দু' জন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা উত্‍সবের মরসুমে দিল্লির কয়েকটি এলাকায় নাশকতার ঘটনা ঘটানোর ছক কষেছিল বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে।" পুলিশের আরও দাবি, দাউদ ইব্রাহিমের ভাই দানিশ ইব্রাহিমের টাকায় ভারতে নাশকতার ছক কষেছিল জঙ্গিরা। ধৃত জঙ্গিদের কাছ থেকে মিলেছে বিস্ফোরক এবং অস্ত্র।"

স্পেশাল সেলের সিপি নীরজ ঠাকুর জানিয়েছেন, "জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পেরেছে, ধৃত দু'জন জঙ্গি মাস্কাটে গিয়েছিল। যেখান থেকে তাদের একটি নৌকায় করে পাকিস্তানে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। পাকিস্তানে, তাদের ১৫ দিনের জন্য একটি ফার্ম হাউসে রাখা হয়েছিল। ওই সময় তাদের আগ্নেয়াস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।"