ইন্টারনেট হইতে সাবধান, ভুলেও এইগুলি সার্চ করবেন না

ইন্টারনেট হইতে সাবধান, ভুলেও এইগুলি সার্চ করবেন না

আজবাংলা  ইন্টারনেটের দৌলতে যা মন চায় তাই সার্চ করেন গুগলে। আবার থেকে হয়ে যান একটু সাবধান। কারন, এখন বিশ্বে সবথেকে বেশি হচ্ছে নেটের মাধ্যমে জালিয়াতি। বিশেষ করে দেখা গেছে করোনার আবহের জন্য এই বিষয়টি আরও বেড়ে গিয়েছে।

এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে সুরক্ষার কারনে গুগলে একসাথে একের বেশি জিনিস সার্চ না করাই যথার্থ। আসলে আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাপনে এই বিষয়টি অভ্যস্ত হয়ে গেছে। তবে, আমাদের মনে রাখতে হবে গুগল যে সর্ব ক্ষেত্রে সঠিক এমনটা একেবারেই নয়। কারণ, গুগল নিজে কোনও কন্টেন্ট লেখে না।

আসুন এবার দেখে নেওয়া যাক, আবার থেকে গুগলের সার্চ ইঞ্জিনে কিছু খুজতে গেলে কোন কোন বিষয় মাথায় রাখতে হবে। অনেকসময় দেখা যায়, নানান অ্যাড যেমন বিনিয়োগ করলেই খুব শীঘ্রই বড়লোক হয়ে যাবেন আপনি, ইত্যাদি। তবে এরকম পার্সোনাল ফাইন্যান্স ও স্টক মার্কেটের কথা গুগলের কাছে ভুলেও জানতে চাইবেন না।

করোনার আবহে কোন রোগের কী ওষুধ জানতে গুগলকে ভরসা করা একেবারেই নিরাপদ হবে না। সবসময় রোগের কী লক্ষণ সে বিষয়ে সঠিক উত্তর দেয় না গুগল। বিশেষ করে করোনা নিয়ে ওষুধের কোনও নাম সার্চ করা যথাযথ নয়।

এরপর বলতে হয় অ্যানটি ভাইরাসের কথা। অফুরন্ত সুবিধার সঙ্গে অ্যান্টি ভাইরাসের বিজ্ঞাপন দেখে সেটি ডাউনলোড করা নিরাপদ নয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে আপনার অজান্তেই ডিভাইসে ঢুকে পড়বে বিপদজনক ভাইরাস।

সঠিক URLনা জানলে ব্যাঙ্কের নাম করে নেট ব্যাঙ্কিংয়ের জন্য ওয়েব সাইট সার্চ করবেন না। আপনি যে ব্যাঙ্কে লেনদেন করেন তাদের অনলাইন ঠিকানা জেনে রাখা উচিত। ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটের আদলে ‘ফিশিং সাইট’ও রয়েছে অনেক। তাই একদম সাবধান।

কোনো সংস্থার কাস্টমার কেয়ার নম্বর সার্চ করাও উচিত নয়, নেটে। অনেকসময় ভুল নম্বর থাকে। বহু ক্ষেত্রে এইসব নম্বরে ফোন করলে আপনার বিপদ হতে পারে। বরং নির্দিষ্ট সাইটের ‘কন্ট্যাক্টে’ গিয়ে কাস্টোমার কেয়ারের নম্বর জোগার করুন।

স্ক্যামারাদের সবচেয়ে বড় লক্ষণ থাকে সরকারি ওয়েবসাইট। লাইসেন্সের আবেদন হোক বা অনলাইনে সরকারি ডেথ সার্টিফিকেট বা পুরসভার কোনো ওয়েবসাইট খুঁজতেও গুগলে সার্চ করবেন না। গুগল সার্চে পাওয়া অনেক ওয়েবসাইট যথাযথ মনে হলেও তা আদপে প্রতারণার ডেরা হতে পারে।