ইতিহাসিক ভুল না করে স্বাধীনতা দিবসে ইতিহাস গড়লেন বিমান বসু

ইতিহাসিক ভুল না করে  স্বাধীনতা দিবসে ইতিহাস গড়লেন বিমান বসু

ই প্রথমবার স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলিমুদ্দিন স্ট্রিটে উড়ল জাতীয় পতাকা। সিপিএমের রাজ্য সদর দফতরে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করলেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। উপস্থিত ছিলেন সুজন চক্রবর্তী, মহম্মদ সেলিমরা। যদিও ৭৫ বছরে এই প্রথম স্বাধীনতা দিবস (Independence Day) পালনের উদ্যোগ নিল সিপিএম। স্বাধীনতার ৭৫ বছর উপলক্ষে এমনই প্রথাভাঙা কর্মসূচি নিয়েছে সিপিএম(CPM) কেন্দ্রীয় কমিটি।

এদিন সারা দেশের সমস্ত পার্টি দফতরে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করছে সিপিএম নেতা-কর্মীরা। শুধু তাই নয়, স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে একবছর ধরে নানা কর্মসূচি নিয়েছে বামেরা। ধর্মনিরপেক্ষতা, গণতন্ত্র, সাম্প্রদায়িকতার বিপদ, দেশের স্বাধীনতায় কমিউনিস্টদের ভূমিকা সমস্ত কিছু নিয়েই চলবে এক বর্ষব্যাপী প্রচার। প্রসঙ্গত, তিনদিন ব্যাপী কেন্দ্রীয় কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে রাজ্য সিপিএমের পক্ষ থেকে এই স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের প্রস্তাব দিয়েছিলেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী।

তাঁর এই প্রস্তাবে কেন্দ্রীয় কমিটি অনুমোদন দিয়ে দেয়। এরপরই সিদ্ধান্ত পাকা হয়ে যায়। শীর্ষ নেতৃত্বের উপস্থিতিতেই আলিমুদ্দিনের ইতিহাসে এই প্রথমবার জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হল। কিন্তু হঠাত্‍ কেন এই সিদ্ধান্ত? সুজন চক্রবর্তীদের ব্যাখ্যা, জাতীয়তাবাদ বা দেশাত্ববোধ পুঁজি করে দেশের জনমানসে যে ভাবে প্রভাব ফেলেছে বিজেপি, তারই কাউন্টার হিসাবে বামেরাও এবার তাঁদের চ্যালেঞ্জ জানাবে। যার পরিপ্রেক্ষিতেই এবার স্বাধীনতা দিবসে আলিমুদ্দিনে উড়ল তেরঙ্গা।

সিপিএমের এমন সিদ্ধান্তকে অত্যন্ত তাত্‍পর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। তাদের মতে, বিজেপির দেশভক্তিকে পালটা দিতেই এমন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। কেন্দ্রে বিজেপি সরকারকে হঠাতে তৃণমূলের সঙ্গে হাত মেলাতেও যে পিছপা হবে না সিপিএম, সেই ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিলেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। এবার জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে বিজেপির দেশাত্মবোধকেই কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেওয়া হল।