চুলের যত্নে কালোজিরা

চুলের যত্নে কালোজিরা

নিয়মিত চুল ও স্ক্যাল্পের যত্ন নেওয়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর ডায়েট ও ঘুম সবই প্রয়োজন রয়েছে চুল গজানোর ক্ষেত্রে। শারীরিক বিভিন্ন রোগের কারণে চুল দ্রুত পড়তে থাকে। তাই নতুন চুল গজাতে ও চুল পড়া কমাতে ব্যবহার করুন কালোজিরা।কালোজিরা চুল পড়া বন্ধ করে , চুলের অকালে পেকে যাওয়া রোধ করে,চুলের ভেঙে যাওয়া রোধ করে , রুক্ষতা দূর করে চুলে উজ্জ্বলতা নিয়ে আসে । কালোজিরা আয়ুর্বেদীয় , ইউনানী, কবিরাজী ও লোকজ চিকিৎসায় ব্যবহার হয়ে আসছে বহু বছর ধরে। এর তেল ব্যবহারে নতুন চুল গজায়। আসুন জেনে নেওয়া যাক চুল গজাতে  কালোজিরার ব্যবহার সম্পর্কে  

 
নারকেল তেল ও কালোজিরা : চুলের বৃদ্ধির জন্য কালোজিরার সঙ্গে নারকেল তেল মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য ১ টেবিল চামচ কালোজিরার গুঁড়ো বা তেলের সঙ্গে ১ চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে নিন। আপনি চাইলে মধুও যোগ করতে পারেন। এ মিশ্রণটি টাকের স্থানে অথবা চুলের গোড়া থেকেআগা পর্যন্ত ব্যবহার করুন। সপ্তাহে কমপক্ষে একবার এ প্যাকটি ব্যবহার করুন।

আপেল সিডার ভিনেগার ও কালোজিরা: চুলের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে ও খুশকিমুক্ত করতে আপেল সিডার ভিনেগার ও কালোজিরার তেল ব্যবহার করতে পারেন।কালোজিরা জলে মিশিয়ে ফুটিয়ে নিন। মিশ্রণটি ঠান্ডা হয়ে গেলে ছেঁকে নিন । এরপর এতে ভিনেগার মিশিয়ে চুলে ও স্ক্যাল্পে ব্যবহার করুন। কয়েক ঘণ্টা রেখে বা পরের দিন শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন এ পদ্ধতি অনুসরণ করুন। 

অলিভ অয়েল ও কালোজিরা: এ দুই তেলে পাওয়া অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল যৌগ। যা চুল পড়া রোধে কার্যকরী ভূমিকা রাখে। সমপরিমাণ অলিভ অয়েল ও কালোজিরার তেল একসঙ্গে মিশিয়ে চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করে আধঘণ্টা পর ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন।


কালোজিরা ও লেবুর রস: কালোজিরা তেলের সঙ্গে যদি আপনি লেবুর রস মিশিয়ে মাথার ত্বকে ব্যবহার করেন তাহলে দ্রুত চুল পড়া বন্ধ হয়ে নতুন চুল গজাবে।কালোজিরায় থাকা অক্সিডেন্ট চুল পড়া রোধ করে। এজন্য মাথার যেসব অংশে চুল কম, সেখানে এ মিশ্রণটি ব্যবহার করুন। ১৫ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।