ব্রিটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রীকে, জানা যাবে আজ

ব্রিটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রীকে, জানা যাবে আজ

সোমবার বিকেলেই ঘোষণা হবে পরবর্তী ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর নাম। বরিস জনসনের ( Boris Johnson) ছেড়ে যাওয়া আসন কে সামলাবেন সেই ঘোষণা করবে ব্রিটেনের কনজারভেটিভ পার্টি (Conservative Party)। গত শুক্রবারই শেষ হয়েছে ভোটাভুটি। সূত্রের খবর ভারতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনকের (Rishi Sunak) থেকে অনেকটাই এগিয়েছে রয়েছেন ব্রিটেনের প্রাক্তন বিদেশ সচিব লিজ ট্রুজ (Liz Truss)।

সোমবার ব্রিটিশ সময় সকাল সাড়ে এগারোটায় (ভারতীয় সময় বিকেল পাঁচটা) ঘোষণা হবে ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের (10 Downing Street) পরবর্তী বাসিন্দার নাম। মূল্যবৃদ্ধিতে নাজেহাল আমজনতাকে সুরাহা দেওয়ার চ্যালেঞ্জ মাথায় নিয়েই শপথ নেবেন ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী (British Prime Minister)।  একাধিক আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের (Boris Johnson) বিরুদ্ধে ক্ষোভ তৈরি হয় ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টির অন্দরেও। পরপর মন্ত্রীরা পদত্যাগও শুরু করেন। এই পরিস্থিতিতে গত জুলাইতে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন বরিস জনসন। নতুন প্রধানমন্ত্রী খুঁজতে দলের অন্দরেই ভোটাভুটি শুরু করে দেয় কনজারভেটিভ পার্টি।

একাধিক নেতার নাম উঠে এলেও চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয় ব্রিটেনের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনক (Rishi Sunak) এবং বিদেশ সচিব লিজ ট্রুসের (Liz Truss) মধ্যে। দেশ জুড়ে দলের নেতাদের মধ্যে প্রচার চালান দুই নেতাই।  একাধিক বিতর্কসভাতেও মুখোমুখি হয়ে আর্থিক সংকটে ভুগতে থাকা ব্রিটেনের (Britain) আম জনতার জন্য তারা কী করবেন সেই যুক্তি রাখেন ঋষি এবং লিজ।

গত শুক্রবার শেষ হয় কনজারভেটিভ পার্টির ভোটাভুটি। ব্রিটেনের শাসকদল সূত্রে খবর প্রায় লাখ দুয়েক নেতা-কর্মী ভোট দিয়েছেন। ভোট শুরুর পর প্রাথমিক প্রবণতায় ভারতীয় বংশদ্ভূত ঋষি সুনক এগিয়ে থাকলেও, যত দিন গড়িয়েছে পাল্লা ভারী হয়েছে লিজ ট্রুসেরই। আম জনতার দৈননন্দিন ব্য়য়বৃদ্ধি রুখতে কর সংস্কারের মতো একাধিক পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়ে রেখেছেন লিজ ট্রুস।

প্রচারের সময়, বিদ্যুতের খরচ কমানো, জ্বালানি সংকট মোকাবিলার মতো একাধিক বিষয়ে পদক্ষেপেরও কথা শুনিয়েছেন লিস। বাড়তে থাকা জ্বালানির দাম দেখে বহু ব্রিটেনবাসীরই আশঙ্কা এই শীতে বিল মিটিয়ে উঠতে পারবেন না তাঁরা। রবিবার এক সাক্ষাৎকারে লিজ ট্রুসের দাবি, জনতাকে এই সমস্যায় পড়তে দেবেন না তিনি। তবে কোন পথে তিনি এই সংকট মেটাবেন তা স্পষ্ট করেননি লিজ স্ট্রুস। সোমবার নাম ঘোষণার পরে মঙ্গলবারই স্কটল্যান্ডে গিয়ে রাণী এলিজাবেথের সঙ্গে দেখা করবেন নতুন প্রধানমন্ত্রী। সেখানেই হবে প্রধানমন্ত্রীর শপথ। স্কটল্যান্ড থেকে ফিরে ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের সরকারি বাসভবনে পা রাখবেন নতুন প্রধানমন্ত্রী।