শ্রীলঙ্কায় প্রকাশ্যে বোরখা-নিকাবে নিষেধাজ্ঞা চাপাল সরকার

শ্রীলঙ্কায়  প্রকাশ্যে বোরখা-নিকাবে নিষেধাজ্ঞা চাপাল সরকার

শ্রীলঙ্কায় জনসমক্ষে বোরখা, নিকাব-সহ যে কোনও ধরনের মুখাবরণের উপরে নিষেধাজ্ঞা চাপাল সরকার। উদ্দেশ্য, জাতীয় সুরক্ষা বজায় রাখা। মঙ্গলবার এক ক্যাবিনেট মিটিংয়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে, স্বাভাবিক ভাবেই করোনাভাইরাসের প্রকোপ এড়াতে প্রকাশ্যে মাস্ক পরায় কোনও নিষেধ নেই।

মার্চ মাসে জনসুরক্ষা দফতরের মন্ত্রী শরৎ বীরশেখর একটি বিল পেশ করেন। তাতে বোরখা-সহ সব ধরনের মুখাচ্ছাদন নিষিদ্ধ করার আবেদন জানানো হয়। তারপরেই ক্যাবিনেট এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে বুধবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন ক্যাবিনেটের মুখপাত্র। তাঁর বিবৃতিতে সরাসরি বোরখা বা নিকাবের উল্লেখ না-থাকলেও রাতে মন্ত্রী বীরশেখর এক ফেসবুক পোস্টে স্পষ্ট লেখেন— ‘‘মুখমণ্ডল ঢাকা পড়ে যাবে, বোরখা সহ এ রকম সব আচ্ছাদন এ বার নিষিদ্ধ করা হল।’’

২০১৯-এ ইস্টার রবিবারে জঙ্গি হানার পরেও কিছু দিন বোরখা নিষিদ্ধ ছিল এ দেশে। আপাতত, এই নিষেধাজ্ঞাকে আইন করার জন্য শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে সেটিকে পাশ করতে হবে। শ্রীলঙ্কায় পাকিস্তানের হাই কমিশনার সাদ খট্টক এই সিদ্ধান্তের নিন্দা করে বলেছেন, ‘‘এটা বৈষম্যের রাজনীতি।’’