সতীর পীঠের অন্যতম পীঠ কালীঘাট! মায়ের কৃপায় জীবন সুন্দর ও সুগঠিত হয়ে ওঠে

সতীর পীঠের অন্যতম পীঠ কালীঘাট! মায়ের কৃপায় জীবন সুন্দর ও সুগঠিত হয়ে ওঠে

আজবাংলা        কালীঘাটের আনন্দময়ী মা জীবনের সব খারাপ সময়েই রুখে দাঁড়ান ৷ সঙ্কটের কালো মেঘ যতক্ষণ না কাটে ততক্ষণই মা শক্তি প্রদান করেন, যাতে জীবনে সুখ শান্তি একই সঙ্গে বাস করে ৷ কালীঘাটের মহাময়ী মা সন্তানের কাছে এক বড় নাম ৷সময়ের সঙ্গে সঙ্গে জীবনের বিভিন্ন পরিস্থিতি জটিল হয় তখনই মহামায়ার তুমুল শক্তিতে জীবনের সৌন্দর্য ফিরে আসে ৷ মায়ের শ্রীচরণে এমন শান্তি আছে যা পৃথিবীর কোনও খানে নেই ৷ খারাপ সময়ে মায়ের আশীর্বাদই ভরসা ৷ কালীঘাটের মায়ের নামে জীবনে বড়সড় শক্তি পাওয়া যায় ৷ 

মা অপার দয়ার সাগর ৷ মায়ের নামে অনেক গ্লানিই এক নিমেষেই দূর হয় ৷ জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই মা কালীর আশীর্বাদ প্রয়োজনীয় শক্তি সরবরাহ করে থাকে ,এক অদৃশ্য শক্তি র অন্য নাম মা কালী ৷ মায়ের নাম নিলে তাঁকে কুসংস্কার বা ধর্মভীরু বলা যায়না ৷ মা-সন্তানের বাৎসল্য তো কাল থেকে মহাকালে প্রবাহমান ৷ সতীর পীঠের অন্যতম পীঠ কালীঘাট ৷

দিনে হাজার হাজার ভক্তসমাগম হয়ে থাকে ৷ সেখানে যে যার মত করে সমস্যা নিয়ে মায়ের দরজায় আসেন ৷ মায়ের নামে বহু মানুষের জীবন শুধরে গিয়েছে ৷ জীবনে এসেছে সুস্থিরতা ৷ পাশবিকতা দূর হয়ে জাগ্রত হয়েছে মানবিকতা, জেগেছে মানবতাবোধ ৷ মায়ের নাম করা উচিৎ মনে, বনে ও কনে ৷ কালীঘাটের করুণাময়ী মায়ের স্পর্শে সমস্ত ক্লান্তি যেন এক মুহূর্তেই দূর হয়ে যায় |

 মায়ের নাম করা উচিৎ মনে, বনে ও কনে ৷ মা সদাই রক্ষা করে থাকেন ৷দুঃখ, যন্ত্রণা বা দুর্দশা জীবনকে ভেঙে চূর্ণ-বিচূর্ণ করতে আসে কালীঘাটের মা জীবনকে এক অন্যমাত্রায় নিয়ে আসেন ৷ কালীঘাটের সব সময়েই রক্ষ করেন ৷ মায়ের স্পর্শেই জীবন সুন্দর হয়ে ওঠে আগের থেকে ৷ মা কালী জীবনের শক্তির এক অন্যরূপ ৷ তিনিই শক্তিরূপিনী দেবী, তিনি দয়াময়ী ৷