কল্যাণী এমসে চাকরি নিয়োগ-দুর্নীতি মামলা তদন্তভার নিল সিআইডি

কল্যাণী এমসে চাকরি  নিয়োগ-দুর্নীতি মামলা তদন্তভার নিল সিআইডি

এসএসসি নিয়োগ-দুর্নীতির তদন্ত করছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (সিবিআই)। এই আবহে কল্যাণীর এমসে নিয়োগে-দুর্নীতির অভিযোগের তদন্তভার তুলে দেওয়া হল সিআইডির হাতে। ওই কাণ্ডে বিজেপির চার জন জনপ্রতিনিধির নাম জড়িয়েছে। তাঁরা হলেন, বাঁকুড়ার সাংসদ সুভাষ সরকার, রানাঘাটের সাংসদ জগন্নাথ সরকার, বাঁকুড়ার বিধায়ক নীলাদ্রিশেখর দানা এবং চাকদহের বিধায়ক বঙ্কিম ঘোষ।

 বিজেপির ওই চার জনপ্রতিনিধি ছাড়াও আরও চার জনের নাম রয়েছে অভিযোগপত্রে। তাঁদের বিরুদ্ধে প্রতারণা, বিশ্বাসভঙ্গ, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র এবং দুর্নীতিদমন আইনে অভিযোগ আনা হয়েছে। ওই মামলার তদন্ত করছিল কল্যাণী থানা। বৃহস্পতিবার তদন্ত সংক্রান্ত নথি পুলিশ তুলে দিয়েছে সিআইডির হাতে।

মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে সরিফুল ইসলাম নামে মুর্শিদাবাদের এক বাসিন্দা অভিযোগ করেন কল্যাণী থানায়। সরিফুলের বক্তব্য, তিনি এমসের এক জন চাকরিপ্রার্থী। সরিফুলের দাবি, তিনি জানতে পেরেছেন বিজেপি নেতাদের একটি অংশ টাকার বিনিময়ে নিজেদের প্রভাব খাটিয়ে কল্যাণীর এমসের বিভিন্ন পদে চাকরি পাইয়ে দিয়েছেন অনেককে। এর পর এমসের বিভিন্ন পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে বেনিয়মের অভিযোগ তুলে পুলিশের দ্বারস্থ হন তিনি।