নদীয়ায় নকল করতে ধরা পড়ে, অ্যাসিড খেয়ে আত্মঘাতী দশম শ্রেণীর ছাত্রী

নদীয়ায় নকল করতে ধরা পড়ে, অ্যাসিড খেয়ে আত্মঘাতী দশম শ্রেণীর ছাত্রী

 শান্তিপুর  নদীয়ার Shantipur শান্তিপুর ব্লকের বেলগড়িয়া দুই নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত নরসিংহ নগর এলাকার সঞ্জিত পালের মেয়ে পাপিয়া পাল এবছরের শরৎকুমারী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী। পরিবার সূত্রে জানা যায় বিদ্যালয়য়ে গতকাল টেস্ট পরীক্ষা চলাকালীন, সে নকল করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে শিক্ষিকাদের কাছে।

পরিবারের দাবি তাকে, সমস্ত ছাত্রীদের মধ্যে কান ধরে উঠবস করানোর জন্যই অপমানিত হয়েছে সে। যা নিয়ে অন্যান্য ছাত্রীরা হাসাহাসি করে। আর তাতেই অপমানিত হয়ে বিদ্যালয় থেকে বাড়িতে এসে কিছুই না জানিয়ে,  হাতমুখ ধুতে বাথরুমে গিয়ে বাথরুম পরিষ্কার করা মিউরিয়েটিক এসিডের বোতল খুলে খেয়ে নেয় আত্মহত্যার জন্য।

বাথরুম থেকে বেরোতে দেরী হওয়ার কারণে পরিবারের সদস্যরা দরজা ভেঙ্গে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায় শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে, সেখান থেকে গুরুতর অসুস্থ হওয়ার কারণে স্থানান্তরিত করে কলকাতায়। কিন্তু কলকাতায় হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই রাস্তায় গাড়ির মধ্যে মৃত্যু হয় তার। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পর আজ বিকালে পৌঁছাবে বলে জানা যায়।

পরিবারের পক্ষ থেকে বিদ্যালয় শিক্ষিকার বিরুদ্ধে শান্তিপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হবে বলে জানা যায় পরিবার সূত্রে। এ ব্যাপারে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা বলেন, অপরাধবোধ থেকে হয়তো হীনমন্যতা জন্মেছিল তার মধ্যে । তবে তাকে শারীরিক বা মানসিক কোনোভাবেই অপমান জনক কোন শাস্তি দেওয়া হয়নি, যা ক্লাসরুমে থাকা সিসি ক্যামেরা থেকেই বোঝা যাবে।