রাজ্যজুড়ে বৃষ্টির সম্ভাবনা, জেনে নিন আবহাওয়ার খবর

রাজ্যজুড়ে বৃষ্টির সম্ভাবনা, জেনে নিন আবহাওয়ার খবর

আজ রাজ্যজুড়ে রয়েছে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমের জেলাগুলিতে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। শনিবার পর্যন্ত চলবে বৃষ্টিপাত, জানা গিয়েছে এমনটাই। পাশাপাশি চড়বে তাপমাত্রার পারদও। এই মরশুমের মতো ‘শীতসুখ’ শেষ হয়ে যাচ্ছে, জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা।  

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম ও মুর্শিদাবাদে আজ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আগামীকাল দক্ষিণবঙ্গের কমবেশি সমস্ত জেলাগুলিতেই বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে জানা যাচ্ছে। শুক্রবার বৃষ্টি হতে পারে শহর কলকাতাতে। তবে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা নেই। রবিবার থেকে আকাশ পরিষ্কার হবে।

ওইদিন বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে আকাশ হবে মেঘমুক্ত। একইসঙ্গে বৃষ্টিপাত হলেও নতুন করে তাপমাত্রা কমার কোনও সম্ভাবনা নেই বলেই জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা। তাঁদের কথায় এই মরশুমের মতো শীত শেষ হয়েছে। এবার ধীরে ধীরে বাড়বে তাপমাত্রার পারদ।  বুধবার থেকেই উত্তরবঙ্গে বৃষ্টিপাত হচ্ছিল। এদিন বৃষ্টিপাত বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বিশেষত, দার্জিলিং, কালিম্পং এই দুই জেলায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার ও জলপাইগুড়িতেও হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে। একইসঙ্গে হালকা বৃষ্টি হতে পারে মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে। শুক্রবার বৃষ্টির ব্যাপকতা বাড়বে। আগামীকাল উত্তরবঙ্গের সমস্ত জেলাগুলিতেই মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।  

সকালের দিকে সামান্য কুয়াশা দেখা গেলেও বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়বে দৃশ্যমানতা। আগামী দু'দিন তাপমাত্রা দুই থেকে তিন ডিগ্রি পর্যন্ত বাড়তে পারে। গতকাল শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৮.৮ ডিগ্রি সেলসিয়ায়, যা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি কম এবং বৃহস্পতিবার শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়ায়, যা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি।

বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ সর্বাধিক ৯৩ শতাংশ। এদিন শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকতে পারে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকতে পারে ১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি।  আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, বঙ্গোপসাগর থেকে আসা জলীয় বাষ্পপূর্ণ হাওয়ার জন্যেই বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার তুষারপাতের সম্ভাবনা রয়েছে জম্মু, কাশ্মীর , মুজাফফরাবাদ, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ডে। ২৫ তারিখ পশ্চিমী ঝঞ্ঝা তৈরি হতে পারে যা উত্তর-পশ্চিম ভারত থেকে ক্রমশ এগিয়ে পূর্বদিকে যাবে।পূর্ব বাংলাদেশে তৈরি হয়েছে একটি ঘূর্ণাবর্ত।