ভয়াবহ বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত চিন | মৃত অন্তত ১৩

ভয়াবহ বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত চিন | মৃত অন্তত ১৩

ভয়াবহ বৃষ্টিতে (Rain) বিপর্যস্ত চিন (China)। সেদেশের হেনান প্রদেশ প্রায় পুরোপুরি জলমগ্ন হয়ে গিয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম ওই প্রদেশের রাজধানী ঝেংঝাউ। চিনের ওই অঞ্চলে যে পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে, সেপ্রসঙ্গে আবহাওয়াবিদদের দাবি ১ হাজার বছরের মধ্যে এখানে এমন বৃষ্টি দেখা যায়নি। ফলে রাতারাতি সৃষ্টি হয়েছে বন্যা পরিস্থিতি। এখনও পর্যন্ত অন্তত ১৩ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে।

প্রায় ১ লক্ষ মানুষকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে নিরাপদ জায়গায়। গত শনিবার সন্ধ্যা থেকে শুরু হয়ে একনাগাড়েই বৃষ্টি হচ্ছে ঝেংঝাউয়ে। কেবল এখানেই বৃষ্টি হয়েছে ৬১৭.১ মিলিমিটার। যেখানে বছরে ৬৪০.৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। স্বাভাবিক ভাবেই রাতারাতি এমন বিপর্যয়ে নাজেহাল সাধারণ মানুষ। বন্যার বিভিন্ন ভিডিও ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়ায়।

এর মধ্যে একটি ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে কীভাবে সাবওয়ের মধ্যে থাকা একটি ট্রেনের মধ্যে জল ঢুকে পড়েছে। যাত্রীদের প্রায় কোমর পর্যন্ত ডুবে রয়েছে জলে। পরে ছাদ কেটে ওই যাত্রীদের উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও বৃষ্টির ধাক্কায় ওই প্রদেশের একটি বড় হাসপাতাল, যেখানে ৭ হাজারের বেশি মানুষ চিকিত্‍সাধীন থাকতে পারেন সেটিও জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। তড়িঘড়ি গুরুতর অসুস্থদের অন্যত্রদের সরানোর কাজ চলছে। বৃষ্টির প্রকোপে জলস্তর ক্রমশই বাড়ছে হেনান প্রদেশে। ভেঙে গিয়েছে কয়েকটি বাঁধ।

বহু জায়গায় ট্রেন চলাচল একেবারেই বন্ধ। রাস্তার উপরে তীব্রগতিতে জলের বহমান স্রোত দেখলে নদী বলে মনে হতে পারে। পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। বৃষ্টি এখনও না কমায় বন্যাবিধ্বস্ত এলাকায় উদ্ধারকার্য চালাতে অসুবিধা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। দেশে বন্যা সতর্কতা জারি করেছে চিনের আবহাওয়া দপ্তর। বিশেষজ্ঞদের মতে, জলবায়ুর পরিবর্তনের ফলেই অকস্মাত্‍ এমন বৃষ্টি হচ্ছে চি‌নে। আজ, বুধবারও দিনভর বৃষ্টির পূর্বাভাসের কথা জানানো হয়েছে।