অসমে ভুয়ো এনকাউন্টারের অভিযোগ তুলে কমিশনের দ্বারস্থ আইনজীবী

অসমে ভুয়ো এনকাউন্টারের অভিযোগ তুলে  কমিশনের দ্বারস্থ  আইনজীবী

অসম পুলিশের বিরুদ্ধে ভুয়ো এনকাউন্টারের অভিযোগ তুলে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের দ্বারস্থ হলেন দিল্লির এক আইনজীবী। আরিফ জোয়াদ্দার নামের আইনজীবী তথ্য সহ অভিযোগ করেছেন, জুন মাসের ১ তারিখ থেকে গত শনিবার পর্যন্ত ২০টির বেশি ভুয়ো এনকাউন্টারের ঘটনা ঘটিয়েছে পুলিশ। গতকাল রবিবারও অসমে জোড়া এনকাউন্টারের ঘটনা ঘটেছে। একটি নওগাঁ এবং অন্যটি কোকড়াঝড়ে।

একটির ক্ষেত্রে ড্রাগ পাচারের অভিযোগ ছিল অন্যটি ডাকাতির। দিল্লির আইনজীবী মানবাধিকার কমিশনকে লিখেছেন, প্রতিটি ঘটনার ক্ষেত্রেই বলা হচ্ছে, পুলিশের অস্ত্র ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করছিল হেফাজতের থাকা আসামীরা। যা খুবই ছেদো যুক্তি। নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যেই এই ভুয়ো এনকাউন্টার করা হচ্ছে। কী উদ্দেশ্য? আইনজীবীর বক্তব্য, বেছে বেছে সংখ্যালঘুদেরই এনকাউন্টার করা হচ্ছে।

তাঁর কথায়, হিমন্ত বিশ্বশর্মা মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার পর থেকে যে ভাবে সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে কাজকর্ম করছেন অসম পুলিশ সেই অনুযায়ী কাজ করছে। পুলিশ যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তাঁদের বক্তব্য, বেশ কিছু জায়গায় পুলিশের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। ড্রাগ ব্যবসায়ীকে পাকড়াও করতে গেলে ঘিরে ফেলে গুলি করার চেষ্টা হয়েছে।

সেসব ঘটনায় আত্মরক্ষার তাগিদেই পাল্টা গুলি চালিয়েছে পুলিশ। এর মধ্যে কোনও সংখ্যালঘু, সংখ্যাগুরুর ব্যাপার নেই। গত কয়েক বছরে যোগীর শাসনে উত্তরপ্রদেশে কয়েক ডজন ভুয়ো এনকাউন্টারের অভিযোগ উঠেছে। এবার সেই তালিকায় নতুন সংযোজন হিমন্ত বিশ্বশর্মার অসম।