কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র

কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র

কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র  cooch behar lok sabha constituency  কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র হল ভারতের ৫৪৩টি লোকসভা কেন্দ্রের অন্যতম। এই লোকসভা কেন্দ্র পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কোচবিহারকে কেন্দ্র করে গঠিত। ১ নং Cooch Behar Lok Sabha কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত ৭টি বিধানসভা কেন্দ্রই কোচবিহার জেলার অন্তর্গত। এই কেন্দ্রটি তফসিলি জাতি প্রার্থীদের জন্য সংরক্ষিত। 

ইংরেজিতে এই জেলার নামকরণ করা হয়েছে কুচবিহার, যদিও বাংলায় এটি কোচবিহার (কোচ-বিহার হিসাবে উচ্চারিত) নামে পরিচিত , যার অর্থ “কোচ” রাজারা যেস্থানে ভ্রমণ (বিহার) করতেন বা ঘোরাঘুরি করতেন  । সময়ের সাথে সাথে, কোচবিহার একটি রাজ্য থেকে একটি রাজ্যে এবং একটি রাজ্য থেকে একটি জেলার বর্তমান অবস্থানে রূপান্তরিত হয়েছে। ১৯৪৯ সালের ২৮ শে আগস্টের আগে পর্যন্ত কোচবিহার একটি রাজকীয় রাজ্য ছিল।

কোচবিহারের রাজা দ্বারা শাসিত, যিনি ব্রিটিশ সরকারের অধীনে সামন্ত শাসক ছিলেন। ২৮ শে আগস্ট, ১৯৪৯-এর একটি চুক্তির মাধ্যমে কোচবিহারের রাজা রাজ্যটির পূর্ণ এবং বিস্তৃত কর্তৃত্ব, এখতিয়ার এবং ক্ষমতা ভারত সরকারকে অর্পণ করেন । রাজ্য প্রশাসনের গভর্নমেন্টে স্থানান্তর ১৯৪৯ সালের ১২ ই সেপ্টেম্বর ভারতবর্ষে কার্যকর হয়। অবশেষে, কোচবিহারকে পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশের সাথে একীভূত করা হয় এবং ১৯ জানুয়ারি, ১৯৫০ সালে পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক মানচিত্রে কোচবিহার একটি নতুন জেলা হিসাবে আবির্ভূত হয়।

প্রকৃতপক্ষে, রাজ (রাজতন্ত্র) এর স্থান হওয়ায় জেলা আজও স্থানীয় মানুষের মেজাজে বিস্মৃত অতীতের গৌরবময় অতীতকে ধারণ করে রেখেছে। কোচবিহারের শান্তিপ্রিয় মানুষ এমনকি এই সুন্দর শহরের গর্বও করেছিলেন যেখানে মহারাজরা (রাজারা) থাকতেন এবং কখনই ক্লান্ত হন না, যদি উত্তেজনায় বিলাপ না করে, রাজ কাহিনী বর্ণনা করে।

এটা স্পষ্ট, যে কোচবিহার শহরটি দেখেছেন তিনি যে কোনও আধুনিক পরিকল্পিত শহরের মতো অবকাঠামোগত এই সুন্দর পরিকল্পিত শহরটির প্রশংসা না করে স্বচ্ছন্দ থাকতে পারবেন না। তদুপরি, জায়গাটি এতটাই নিরিবিলি এবং শান্ত, ব্যস্ত শহরের কোলাহলমুক্ত এবং সর্বোপরি উত্তর-বাংলার অন্যান্য অঞ্চলের মতো এখানকার আবহাওয়া চারপাশে প্রকৃতির সতেজতা এবং সৌন্দর্য অনুভব করিয়ে দেয়।

সমগ্র কোচবিহার জেলাকে মোট পাঁচটি মহকুমা ও ১২টি সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকে বিভক্ত করা হয়েছে। জেলায় মোট ৬টি পুরসভা রয়েছে। ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে কোচবিহার জেলার জনসংখ্যা ২৮,১৯,০৮৬ জন,[৭] যা জামাইকার প্রায় সমান।  এটি জনসংখ্যার হিসাবে ভারতে ১৩৬তম স্থান অর্জন করেছে (মোট ৭৩৯ টি জেলার মধ্যে)।২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে, জেলার মোট জনসংখ্যার ৯৮.১১% জন বাংলা ভাষায় কথা বলেছেন, ১.৩৮% হিন্দি এবং ০.৫ মানুষ অন্যান্য ভাষায় কথা বলেন। 

কোচবিহার বা কুচবিহার হল পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার জেলা সদর ও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর। কোচবিহারের উত্তরপূর্বে আসাম রাজ্য এবং দক্ষিণে বাংলাদেশ। ভারতের ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে কুচ বিহার শহরের জনসংখ্যা হল ৭৭,৯৩৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫১% এবং নারী ৪৯%। এখানে সাক্ষরতার হার ৮২%। পুরুষদের মধ্যে সাক্ষরতার হার ৮৬% এবং নারীদের মধ্যে এই হার ৭৭%। সারা ভারতের সাক্ষরতার হার ৫৯.৫%, তার চাইতে কোচবিহার এর সাক্ষরতার হার বেশি। এই শহরের জনসংখ্যার ৯% হল ৬ বছর বা তার কম বয়সী।

 মাথাভাঙা মহকুমা কোচবিহার জেলার  মাথাভাঙা ও শীতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রদুটি নিয়ে গঠিত। 

দিনহাটা মহকুমা নিয়ে দিনহাটা ও সিতাই বিধানসভা কেন্দ্রদুটি গঠিত।

কোচবিহার সদর মহকুমা নিয়ে কোচবিহার উত্তর, কোচবিহার দক্ষিণ ও নাটাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্র তিনটি গঠিত। 

তুফানগঞ্জ মহকুমার কয়েকটি গ্রাম পঞ্চায়েতও নাটাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত।

পশ্চিমবঙ্গে আইনসভা কেন্দ্রগুলির সীমানা পুনর্নির্ধারিত হওয়ার পর ২০০৯ সালের হিসেব অনুসারে তফসিলি জাতি প্রার্থীদের জন্য সংরক্ষিত কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বিধানসভা কেন্দ্রগুলি হল:  মাথাভাঙা (তফসিলি জাতি) (২ নং বিধানসভা কেন্দ্র) কোচবিহার উত্তর (৩ নং বিধানসভা কেন্দ্র) কোচবিহার দক্ষিণ (৪ নং বিধানসভা কেন্দ্র) শীতলকুচি (তফসিলি জাতি) (৫ নং বিধানসভা কেন্দ্র) সিতাই (তফসিলি জাতি) (৬ নং বিধানসভা কেন্দ্র) দিনহাটা (৭ নং বিধানসভা কেন্দ্র) নাটাবাড়ি (৮ নং বিধানসভা কেন্দ্র) 

লোকসভা কার্যকাল কেন্দ্র সাংসদ দল প্রথম ১৯৫২-৫৭ উত্তরবঙ্গ উপেন্দ্রনাথ বর্মণ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস।  বীরেন্দ্রনাথ কাঠম ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস অমিয়কান্ত বসু ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস দ্বিতীয় ১৯৫৭-৬২ কোচবিহার সন্তোষ বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস। উপেন্দ্রনাথ বর্মণ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস

দ্বিতীয় ১৯৫৮-৬২  নলিনীরঞ্জন ঘোষ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস । তৃতীয় ১৯৬২-৬৭  দেবেন্দ্রনাথ কার্জি সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লক।  চতুর্থ ১৯৬৭-৭১  বিনয়কৃষ্ণ দাসচৌধুরী ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস ।  পঞ্চম ১৯৭১-৭৭  বিনয়কৃষ্ণ দাসচৌধুরী ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস ।  ষষ্ঠ ১৯৭৭-৮০  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক।  সপ্তম ১৯৮০-৮৪  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক ।

অষ্টম ১৯৮৪-৮৯  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক ।  নবম ১৯৮৯-৯১  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক। দশম ১৯৯১-৯৬  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক । একাদশ ১৯৯৬-৯৮  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক ।  দ্বাদশ ১৯৯৮-৯৯  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক। ত্রয়োদশ ১৯৯৯-২০০৪  অমরেন্দ্রনাথ রায়প্রধান ফরওয়ার্ড ব্লক ।  চতুর্দশ ২০০৪-০৯  হিতেন বর্মণ ফরওয়ার্ড ব্লক।  পঞ্চদশ ২০০৯-১৪  নৃপেন্দ্রনাথ রায় ফরওয়ার্ড ব্লক ।  ষোড়শ ২০১৪-  রেণুকা সিনহা সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস ।  বর্তমান সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক রাজনৈতিক দল বিজেপি নির্বাচনের বছর ২০১৯। 

আরো পড়ুন      জীবনী  মন্দির দর্শন  ইতিহাস  ধর্ম  জেলা শহর   শেয়ার বাজার  কালীপূজা  যোগ ব্যায়াম  আজকের রাশিফল  পুজা পাঠ  দুর্গাপুজো ব্রত কথা   মিউচুয়াল ফান্ড  বিনিয়োগ  জ্যোতিষশাস্ত্র  টোটকা  লক্ষ্মী পূজা  ভ্রমণ  বার্ষিক রাশিফল  মাসিক রাশিফল  সাপ্তাহিক রাশিফল  আজ বিশেষ  রান্নাঘর  প্রাপ্তবয়স্ক  বাংলা পঞ্জিকা