করোনা পরিস্থিতিতেও মাস্কহীন হতে পারবেন কোন দেশে

করোনা পরিস্থিতিতেও মাস্কহীন হতে পারবেন কোন দেশে

এখন প্রতিটা দেশে কোভিড ১৯ এসে সারা পৃথিবীর মুখ ঢেকেছে মাস্কে। জীবন বাঁচাতে প্রতিটা মানুষের রোজকারের সাজসজ্জার সঙ্গী হয়েছে এই মাস্ক। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে তো দুটো মাস্ক পরার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিত্‍সকেরা। কিন্তু আপনি কি জানেন? পৃথিবীর এমন কিছু দেশ রয়েছে, এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়েও যেখানে মাস্ক না পরলেও চলে। চলুন জেনে নিই সেই দেশগুলির নাম—

ইজরায়েল : পৃথিবীর প্রথম দেশ মাস্ক খুলে স্বাভাবিক জীবনে পা রেখেছে। দেশের ৭০% শতাংশ মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার পরে এই দেশের মানুষ মাঝে মধ্যে মাস্ক ছাড়া বেরনোর অনুমতি পেয়েছে।

আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র : দেশের অধিকাংশ মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার পর বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে মাস্ক ছাড়া চলার অনুমতি পেয়েছে এই দেশের মানুষরা। প্রাতভ্রমণ, জগিং বা ছোট অনুষ্ঠানে মাস্ক ছাড়া যেতে পারবে না। 

চিন : এই দেশের মানুষের ই সর্বপ্রথম করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে। তারপর দেশের সব মানুষ ভ্যাকসিন নেওয়ার পর মাস্ক পরতে হয়না আর এদেশে। মাস্কবিহীন ভাবেই এই দেশের মানুষরা বর্তমানে ঘুরে বেড়ায়। 

নিউজিল্যান্ড : নিউজিল্যান্ডে ২৬৫৮ করোনা আক্রান্ত এবং তাতে মৃত হয়েছে মাত্র ২৬ জন। তারপর থেকে এদেশে মাস্ক পরায় আর কড়াকড়ি নেই।

ভূটান : ড্রাগনের দেশ ভূটান খুব সুন্দর করে করোনাকে কন্ট্রোল করতে পেরেছে। এদেশে তাই আর মাস্কের প্রয়োজনীয়তা নেই। বর্তমানে এই দেশে ঘুরতে গেলে মাক্স পড়ার কোনো প্রয়োজন নেই। 

হাওয়াই: করোনার সংখ্যা কমার সঙ্গে সঙ্গে এদেশে প্রচুর মানুষ ভ্যাকসিন নিয়ে নিয়েছে। মাস্ক পরে শুধু বেড়াতে যায় এদেশের মানুষ। এছাড়া আর মাস্কের প্রয়োজনীয়তা নেই সেরকম।