শান্তিপুর বিধানসভার ভোট গণনা

শান্তিপুর বিধানসভার ভোট গণনা

প্রথম রাউন্ডের শেষে মোট 12700 ভোটের গণনার মধ্যে নষ্ট হয়েছে তিনটি ভোট, নোটা পেয়েছে 91 টি, কংগ্রেস 294, সিপিআইএম 1230, বিজেপি 2360, তৃণমূল 8725

অর্থাৎ 6365 ভোটে এগিয়ে তৃণমূল শান্তি পুর বিধান সভায় মোট 13319 ভোটের মধ্যে
২য় রাউন্ড শেষে 6993 ভোটে তৃনমুল কংগ্রেস প্রার্থী এগিয়ে।

তৃনমুল কংগ্রেস পেয়েছে 6363- ভোট

বিজেপি পেয়েছে ভোট 5738

সিপিএম পেয়েছে 945 ভোট
এই রাউন্ডে কোন ভোট নষ্ট হয়নি।

কংগ্রেস পেয়েছে 151 ভোট

নোটা 119 ভোট পেয়েছে।

নোটা

তৃতীয় রাউন্ডের শেষে তৃণমূল 9008

তৃতীয় রাউন্ড এর গণনা শেষে তৃণমূল প্রার্থী ব্রজো কিশোর গোস্বামী পেয়েছে 20404 ভোট।

বিজেপি প্রার্থী নিরঞ্জন বিশ্বাস তিনি পেয়েছেন 11396 ভোট।

কংগ্রেস 571,
নোটা 292

সিপিআইএম

চতুর্থ রাউন্ড এর গণনা শেষে তৃণমূল প্রার্থী ব্রজো কিশোর গোস্বামী পেয়েছে 27807 ভোট।
বিজেপি প্রার্থী নিরঞ্জন বিশ্বাস তিনি পেয়েছেন 14826ভোট।
কংগ্রেস 730
সিপিআইএম 5475
বিজেপি 14 826
নোটা 434
অর্থাৎ চতুর্থ রাউন্ড শেষে তৃণমূল কংগ্রেস শান্তিপুর উপনির্বাচনে 12981ভোটে এগিয়ে।

 

পঞ্চম রাউন্ড শেষে তৃণমূল কংগ্রেস এগিয়ে 15548 ভোটে এগিয়ে।

বিজেপি পেয়েছে 18688

তৃণমূল 34234

সিপিআইএম 6 847
কংগ্রেস 857
নোটা 544

 

শান্তিপুর উপনির্বাচন
৬ রাউন্ড গণনা শেষে টিএমসি-৪০,৮৯৮
বিজেপি-২২,০৬১
সিপিএম-৮,৩৫৭
কংগ্রেস- ১,০৯৬
ব্রজকিশোর গোস্বামী এগিয়ে-১৮,৮৩৭

শান্তি পুর বিধান সভায় উপনির্বাচনে  ১৭  রাউন্ড শেষে ৬৩৮৯২ ভোটে   জয়ী তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী ব্রজ কিশোর গোস্বামী।
তৃনমুল কংগ্রেস   পেয়েছে 110907 ভোটবিজেপি পেয়েছে 47015  ভোট,সিপিএম পেয়েছে 39674 ভোট ,কংগ্রেস পেয়েছে    20836ভোট 
নোটা 18073 টি ভোট। 

যে বিজেপি গত বিধানসভা 1900 হাজারেরও বেশি ভোটে জয়ী সেই বিজেপি এবার একেবারে তলানিতে প্রায় বামেদের সাথে। বরং সেই তুলনায় অনেকটাই ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাম শিবির।ছটি পঞ্চায়েতের মধ্যে গ্রামের মাত্র কয়েকটি বিজেপির থাকলেও শহরে দাঁত ফোটাতে পারেনি একেবারেই। অন্যদিকে সিপিআইএম প্রার্থী সৌমেন মাহাতো সম্পর্কে সবচেয়ে বেশি আবেগ থাকলেও ভোটবাক্সে তা প্রতিফলিত হয়নি কোথাও। গ্রামে তো নয়ই শহরেরও 24 টি ওয়ার্ডেও না, এমনকি তার নিজস্ব ওয়ার্ড 11 নম্বরেও তৃণমূলের কাছে হার আছে বলে জানা গেছে।


এ প্রসঙ্গে পরাজিত নিরঞ্জন বিশ্বাস বলেন মানুষকে বোঝাতে সক্ষম হইনি, তৃণমূলের ভয় সন্ত্রাস তো আছেই, তবে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে ভোট বাড়বে সে বিষয়ে তিনি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন। অন্যদিকে  জয়ী ব্রজকিশোর গোস্বামী বলেন, এ জয় কর্মী-সমর্থকদের সফলতা এবং শান্তিপুর বাসীর মমতা ব্যানার্জীর উপর অগাধ বিশ্বাস এবং আস্থা। যারা বামপন্থায় মতামত দান করেছেন তাদের সৌমেন মাহাতো লাল সালাম জানিয়েছেন। কংগ্রেস প্রার্থী রাজু পাল লড়াইয়ে কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের সৎ সাহস দেখানোর জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।