সিরিজ জিতেও ঘোর চিন্তায় পড়ে গেলেন বিরাট কোহলী

সিরিজ জিতেও ঘোর চিন্তায় পড়ে গেলেন বিরাট কোহলী

কঠিন জৈব সুরক্ষা বলয় একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না বিরাট কোহলী। গত অস্ট্রেলিয়া সফরের পর ফের একবার জৈব সুরক্ষা বলয় নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ভারত অধিনায়ক। আইপিএলের পরে একাধিক সিরিজ খেলবে ভারত। গোটা পৃথিবী জুড়ে করোনাভাইরাসের প্রকোপ এখনও কমেনি। তাই এই মারণ ভাইরাস থেকে ক্রিকেটারদের বাঁচিয়ে বিশ্ব জুড়ে খেলাধুলা চালিয়ে যাওয়ার জন্যই বলয় তৈরি করা হচ্ছে

। যদিও বিরাট কিন্তু খুশি হতে পারলেন না। সেটা অকপটে বলেও দিলেন। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ একদিনের ম্যাচের পর কোহলী বলেন, 'এই সবে একটা সিরিজ শেষ হল। কয়েক দিন পর থেকে আবার নতুন বলয়ে ঢুকে পড়তে হবে। এরপর আইপিএল শেষ হলে ইংল্যান্ড যেতে হবে। সেখানেও বলয়ে থাকা বাধ্যতামূলক। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল শেষ হওয়ার কয়েক দিন পর থেকে শুরু হয়ে যাবে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ। সেখানেও বলয়ে থাকতে হবে।

এতগুলো মাস বলয়ে থাকা খুবই কষ্টের। কারণ সবার মানসিক স্থিতি সমান হয় না। কিন্তু আমাদের মানিয়ে নেওয়া ছাড়া আর কোনও উপায় নেই। আশা করি ভবিষ্যতে এই পরিস্থিতির বদল ঘটবে।' সদ্য ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে লম্বা সিরিজ শেষ করেছে ভারতীয় দল। বিদেশি ক্রিকেটাররা একে একে আইপিএলের দলে যোগ দিলেও কোহলী এবং আরও কয়েক জন আপাতত কয়েক দিন বিশ্রাম নিয়ে ক্রোড়পতি লিগের প্রস্তুতিতে নেমে পড়বেন।

স্বভাবতই জৈব বলয়ের মধ্যেই আগামী ৯ এপ্রিল থেকে আইপিএল আয়োজিত হবে। চলবে ৩০ মে পর্যন্ত। প্রায় দেড় মাসের প্রতিযোগিতা শেষ হলেই জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে ইংল্যান্ড উড়ে যাবে ভারত। ১৮ থেকে ২২ জুন পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেই টেস্ট খেলবে বিরাটের দল। সেটা শেষ হলেও দেশে ফিরতে পারবে না ভারতের টেস্ট দল। কারণ ৪ অগস্ট থেকে জো রুটের ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচটা টেস্ট খেলবেন অজিঙ্ক রাহানে- চেতেশ্বর পূজারারা।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও গত বছর ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়েছিল আইপিএল। অবশ্য এর তিন সপ্তাহ আগে থেকেই বলয়ে থাকতে বাধ্য হয়েছিলেন সব দলের ভারতীয় ক্রিকেটাররা। সেই শুরু। তারপর থেকে প্রায় ছয় মাসের বেশি সময় একাধিক সিরিজের জন্য নিভৃতবাসে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন কোহলী- রোহিত শর্মারা। আর তাই বিরক্ত হয়ে ফের একবার বলয় নিয়ে জোরালো প্রশ্ন তুললেন ভারত অধিনায়ক।