ভুল করেও এই ফলের বীজ ফেলে দেবেন না

ভুল করেও এই ফলের বীজ ফেলে দেবেন না

আজ বাংলা: সব রকম ফল খেতে আমরা কমবেশি সকলেই ভালোবাসি। কিন্তু ফলের বীজ খরচের খাতায় চলে যায়। সেটাকে নিয়ে নাড়াচাড়া খুব কম লোকেরই করেন। কিন্তু ফলের বীজ যে কতটা উপকারী তা আমরা জানিনা।আমি লিচু সম্পর্কে আমাদের একটা আলাদা টান থাকলেও কাঁঠাল সম্পর্কে নাক সিঁটকানোর প্রবণতা বেশ কিছু মানুষের আছে। এই কাঁঠাল ফলের বীজ অনেক উপকারে আসে।

কাঁঠাল খেয়ে নিলেও বীজ টি বেশিরভাগ সময় ফেলে দেওয়া হয়, কিন্তু ভুল করেও এই ভুল করবেন না। কাঁঠালের বীজে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক লোহা তামা পটাশিয়াম ম্যাগনেসিয়াম। ফলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে এটি। এছাড়াও এর মধ্যে রয়েছে এল রাইবোফ্ল্যাভিন এবং থিয়ামিন যা আপনাকে সতেজ রাখবে।

কাঁঠালের বীজ কিছুক্ষণ ভিজিয়ে তা বেটে ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে চোখের তলায় লাগালে চোখের কালি দূর হয়, দুধ এবং মধুর সাথে কাঁঠালের বীজ বাটা মিশিয়ে মুখে লাগালে তা ফেসিয়ালের কাজ করে এবং কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন দেখবেন আপনার মুখ আগের থেকে অনেক বেশী চকচকে হয়েছে।

কাঁঠালের বীজ রোদে শুকিয়ে দ্বারস্ত করে খাওয়া যেতে পারে এবং এটি নানা তরকারিতেও দিয়ে খাওয়া যায়। এটি অনেক মানসিক অবসাদ কমায় কারণের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট।

কাঁঠালের বিচি প্রচুর পরিমাণে লোহা কাটা হিমোগ্লোবিন বাড়াতে সাহায্য করে ফলে যাদের রক্তাল্পতা সমস্যা রয়েছে তারা সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।