ফেসিয়াল করার পর এই ভুল গুলি একদম করবেন না 

ফেসিয়াল করার পর এই ভুল গুলি একদম করবেন না 

 ফেসিয়াল মানে যেহেতু মূলত ত্বককে পরিষ্কার করা,তাই ত্বককে পরিষ্কার রাখার জন্য,কেউ চাইলে ১৫ বা ১৬ বছর বয়স থেকে ফেসিয়াল শুরু করতে পারে।আবার এই সময় ব্রণর প্রবণতা দেখা যায়।তাই খুব ব্রণ হলে,তা থেকে মুক্ত থাকার জন্য করতে পারে ফেসিয়াল। তবে ৩০ এর কোঠায় পা রাখার আগে ফেসিয়াল না করাই ভালো। ক্লিনজিং-টেনিং-ময়েশ্চারাইজিং কিন্তু বাড়িতেও করা যায়।

এছাড়াও হার্বাল প্রোডাক্ট কিনে এনে চলতে পারে হোম ফেসিয়াল। সেগুলি হবে স্পেশাল ট্রিটমেন্ট ফেসিয়াল। কিন্তু ফেসিয়াল করার আদর্শ সময় ৩০ বছর বয়সের পর,কারণ তার আগে অবধি ত্বক খুব কোমল, নরম থাকে। বাজার চলতি সব প্রোডাক্টেই কেমিক্যালের আধিক্য থাকে। এতে যেমন ত্বকের ক্ষতি হয় সেই সঙ্গে ত্বকের বয়সও বাড়িয়ে দেয়। এছাড়াও দ্রুত চামড়া কুঁচকে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ফলে মুখের স্বাভাবিক গ্লো নষ্ট হয়ে যায়। আর ওই গ্লো পরবর্তীকালে ফিরেও আসে না। বরং মুখ অনেক বেশি শুকনো লাগে।

ত্বকের যত্নে বাড়িতে বা পার্লারে গিয়ে ফেসিয়াল আমরা অনেকেই করি। ফেসিয়ালের সময় মালিশের ফলে ত্বকের রক্তসঞ্চালন ঠিকভাবে হয় এবং ত্বক উজ্জ্বল হয়।  তবে ফেসিয়াল করার পর, আমরা অজান্তেই এমন অনেক কাজ করে ফেলি যা ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি করে। আসুন জেনে নেওয়া যাক ফেসিয়াল করার পর কোন কোন কাজ করা একবারেই উচিত নয় ফেসিয়াল করার দু-তিন দিনের মধ্যে  স্ক্রাব  অথবা এক্সফোলিয়েট করা একদমই উচিত নয়। ফেসিয়াল করার সময়ই ত্বক এক্সফোলিয়েট করা হয়। ঘন ঘন এক্সফোলিয়েশন অথবা স্ক্রাবিং করলে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে। 


ফেসিয়ালের সময় ত্বকে যথেষ্ট পরিমাণ স্টিমের প্রয়োগ করা হয়।তাই ফেসিয়াল করার  এক দু দিনের মধ্যে স্টিম না নেওয়াই ভালো। ফেসিয়ালের পর ত্বকের লোমকূপ খুলে যায়। এমন অবস্থায় স্টিম নিলে ত্বকে র্যা শ বেরোতে পারে।ফেসিয়াল করার দুই-তিন দিন আগে ওয়াক্সিং করতে পারেন, তবে ফেসিয়ালের পরে এক-দু'দিনের মধ্যে ওয়াক্সিংকরবেন না। ফেসিয়াল করার পর ত্বক অত্যন্ত সংবেদনশীল হয়ে ওঠে। তাই ফেসিয়ালের পর যদি ওয়াক্সিং বা থ্রেডিং করা হয় তাহলে ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। 


ফেসিয়ালের পরে বেশ কিছুদিন হেভি মেকআপ  এড়িয়ে চলুন। সংবেদনশীল ত্বকে হেভি মেকআপ অত্যন্ত ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে।ফেসিয়াল করার পর সঙ্গে সঙ্গে ফেসওয়াশ ব্যবহার করবেন না।ফেসিয়াল করার পর  রোদে না বেরোনোই সবচেয়ে ভাল। ফেসিয়ালের পর ত্বক অত্যন্ত সংবেদনশীল হয়ে উঠে, ফলে সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মি ত্বককে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।একান্তই বাইরে বেরোতে হলে অবশ্যই সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।