চৈত্র নবরাত্রিতে দুর্গা উপাসনা? দেখে নিন দিনক্ষণ

চৈত্র নবরাত্রিতে দুর্গা উপাসনা? দেখে নিন দিনক্ষণ

বাসন্তী পূজোর সময়কার এই তিথিকে বলা হয় চৈত্র নবরাত্রি। নবরাত্রি ব্রত, কৃচ্ছসাধন এবং পূজার সময়। অতিরিক্ত নিদ্রাভাব, আলস্য, কাম, ক্রোধ, দর্প, ঈর্ষা, অধৈর্য এবং বিশ্বাসহীনতার মতো নেতিবাচক দোষগুলি আধ্যাত্মিক সাধনার পথে উন্নতিতে বাধা দেয়। কৃচ্ছসাধন করে এগুলিকে জয় করা এবং আধ্যাত্মিক পূর্ণতা লাভ করা— এই হল নবরাত্রী পূজার অর্ন্তনিহিত আদর্শ।  দেবী দুর্গার আরাধনা শুধু শরত্‍কালে নয়, বছরে চারবার হয়ে থাকে।

প্রতি বার ঋতু পরিবর্তনের সময় দুর্গাপুজো করা বিধান রয়েছে হিন্দুধর্মে। বাঙালিরা শারদীয়া দুর্গাপুজোর সঙ্গেই বেশি পরিচিত। তবে এছাড়াও শীতকালে, বসন্তকালে এবং বর্ষাকালে দুর্গাপুজো হয়। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নয় দিন ধরে দেবী দুর্গার (Goddess Durga) আরাধনা হয়ে থাকে। এই ধর্মীয় উত্‍সব নবরাত্রি নামে পরিচিত। আর দিন কয়েক পরেই শুরু হতে চলেছে চৈত্র নবরাত্রি।

বছরে এই চারটি নবরাত্রি হল শারদীয়া নবরাত্রি, মাঘ নবরাত্রি, চৈত্র নবরাত্রি এবং আষাঢ় নবরাত্রি। হিন্দু ক্যালেন্ডার অনুযায়ী আশ্বিন মাসে, ইংরেজি মতে সেপ্টেম্বর - অক্টোবর মাসে শারদীয়া নবরাত্রি পালিত হয়। এছাড়া মাঘ মাসে শীতকালে উদযাপিত হয় মাঘ নবরাত্রি। বসন্ত কালে পালিত হয় চৈত্র নবরাত্রি এবং বর্ষায় উদযাপিত হয় আষাঢ় নবরাত্রি। এর মধ্যে আশ্বিন ও চৈত্র মাসের নবরাত্রি ভক্তদের মধ্যে জনপ্রিয়। অতটা জনপ্রিয়তা নেই বলে মাঘ নবরাত্রি ও আষাড় নবরাত্রি গুপ্ত নবরাত্রি নামেও পরিচিত। চৈত্র নবরাত্রি বসন্তকালে হয় বলে এটি বসন্ত নবরাত্রি নামেও পরিচিত। 

দেখে নেওয়া যাক চৈত্র নবরাত্রি ২০২১-এর দিনক্ষণ

* ১৩ এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে চৈত্র নবরাত্রি। চলবে ২২ এপ্রিল পর্যন্ত

* নবরাত্রির প্রথম দিন প্রতিপদ নামে পরিচিত। এদিন ঘটস্থাপন এবং দেবী শৈলপুত্রীর পুজো হয়।

* ১৪ এপ্রিল হল নবরাত্রির দ্বিতীয়া। এদিন দেবী ব্রহ্মচারিণীর পুজো হয়।

* ১৫ এপ্রিল হল নবরাত্রির তৃতীয়া। এদিন দেবী চন্দ্রঘণ্টার পুজো হয়।

* ১৬ এপ্রিল হল নবরাত্রির চতুর্থী। এদিন দেবী কুশ্মাণ্ডার পুজো হয়।

 * ১৭ এপ্রিল হল নবরাত্রির পঞ্চমী। এদিন দেবী স্কন্দমাতার পুজো হয়।

* ১৮ এপ্রিল হল নবরাত্রির ষষ্ঠী। এদিন দেবী কাত্যানয়ীর পুজো হয়।

* ১৯ এপ্রিল হল নবরাত্রির সপ্তমী। এদিন দেবী কালরাত্রির পুজো হয়।

 * ২০ এপ্রিল হল নবরাত্রির অষ্টমী। এদিন দেবী মহা গৌরীর পুজো হয়।

* ২১ এপ্রিল হল নবরাত্রির নবমী। এদিন দেবী মহা সিদ্ধিদাত্রীর পুজো হয়।

* ২২ এপ্রিল হল নবরাত্রির দশমী। এদিন নবরাত্রির ব্রত সমাপন ও উপবাস ভঙ্গ করা হয়। 

আসুন জেনে নেওয়া যাক নবদূর্গার প্রথম রূপ সম্পর্কে:

 নবরাত্রির সূচনা দিবস। এই দিন নবদুর্গার প্রথম রূপ শৈলপুত্রীর আরাধনা করা বিধেয়, শৈলপুত্রী-পর্বতের কন্যা। দূর্গা হলেন হিমালয় পর্বতের কন্যা। যেহেতু তিনি শৈল (হিমালয়) কন্যা। তাই তার নাম এখানে শৈলপুত্রী। এখানে দেবীর বাহন ষাঁড়। তাঁর এক হাতে থাকে ত্রিশূল। অন্য হাতে পদ্ম।

আসুন জেনে নিন শৈলপুত্রীর আরাধনার ফল কী?

ফল: মা শৈলপুত্রী মনোবল বৃদ্ধি করেন।

আসুন জেনে নেওয়া যাক শৈলপুত্রীর ধ্যান:

বন্দে বাঞ্জিতলাভায় চন্দ্রার্ধকৃতশেখরাম্।

বৃষারূঢাং শূলধরাং শৈলপুত্রীং যশস্বিনীম্।।

পূর্ণেন্দুনিভাঙ্গৌরীং মূলাধারস্থিতাং প্রথমদূর্গাং ত্রিনেত্রাম্।

পটান্বরপরিধানাং রত্নকিরীটাং নানালঙ্কারভূষিতাম্।।

প্রফুল্লবদনাং পল্লবাধরাং কান্তকপোলাং তুঙ্গকুচাম্।

কামনীয় লাবণ্যস্নেহমুখীং ক্ষীণমধ্যাং নিতন্বনীম্।