তুমুল বৃষ্টিতে মাটি হতে পারে দুর্গাপুজো, ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস পশ্চিম ভারত উপকূলে

তুমুল বৃষ্টিতে মাটি হতে পারে দুর্গাপুজো, ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস পশ্চিম ভারত উপকূলে

আজ বাংলা:    আর মাত্র ৬ দিন ....তারপরেই আসছে বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গা পুজোতে আবহাওয়ার বড়সড় পরিবর্তন এবার লক্ষ্য করা যেতে পারে। সেইসঙ্গে আসন্ন শীতেও ধেয়ে আসতে পারে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়। পূর্বমধ্য আরব সাগরের উপর অবস্থিত নিম্নচাপের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। সেটা আরও পশ্চিম-উত্তরপশ্চিমে সরে গভীর নিম্নচাপে পরবর্তিত হতে পারে।

তার জেরে আগামী ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রের উত্তর, গুজরাটের দক্ষিণ, কোঙ্কন এবং গোয়া উপকূলে ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস দিল মৌসম ভবন। মত্‍স্যজীবীদের আগামী তিন দিন আরব সাগরে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। মধ্য বঙ্গোপসাগরের উপর আগামী ১৯ তারিখ তৈরি হতে পারে একটি নিম্নচাপ বলয়। সেটা আরও শক্তিশালী হবে। 

অক্টোবর নভেম্বরে একের পর এক ঘূর্ণিঝড়ের ইঙ্গিত দিচ্ছে আবহাওয়া দফতর। ‘লা নিনা’র পরিস্থিতি এবং নিরক্ষীয় প্রশান্ত এলাকায় সমুদ্রের জলের উপরের অংশের তাপমত্রা স্বাভাবিকের থেকে কমতে শুরু করায় সাইক্লোন সৃষ্টি হতে পারে। হাড়কাপানো শীতে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার আশঙ্কা করছে আবহাওয়াবিদরা।আজকে সকাল থেকেই শহরের আকাশে রোদের ছটা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

বিগত কয়েকদিন ধরে নেই বৃষ্টির দেখা। বাতাসে জলীয় বাস্প বেশি থাকায় ভ্যাপসা গরম অনুভূত হচ্ছে। রোদের তেজও বেশ কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। গরমে হাঁসফাঁস করেছে মানুষজন।শুক্রবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে এবং সর্বিনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে। এদিকে সকালের দিকে বেশ কয়েকটি জায়গায় বজ্র বিদ্যুতসহ সামান্য ঝড়ের পূর্বাভাস রয়েছে। তবে রাতেও দিকে মূলত আবছা আকাশ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরের উপর একটি ঘূর্ণিঝড় বিরাজ করছে। এই ঘূর্ণিঝড় আগামী ১৭ ই অক্টোবর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে বঙ্গোপসাগরে প্রবেশ করে প্রবল শক্তি সঞ্চয় করে তা ষষ্ঠী বা সপ্তমীতে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিতে পারে।ওড়িশা উপকূলের কাছাকাছি প্রবেশ করলে, বাংলায়ও এর প্রভাব পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে হাওয়া অফিস।