ঘরোয়া উপায়ে পুরোপুরি নির্মূল করুন পায়ের দুর্গন্ধ

ঘরোয়া উপায়ে পুরোপুরি নির্মূল করুন পায়ের দুর্গন্ধ

আজবাংলা    আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যাদের অকারনেই পা থেকে কি রোজ দুর্গন্ধ বেরোয়। যখন, পা থেকে জুতো খোলেন তখনও বাজে গন্ধ এবার খোলা অবস্থাতেও প্রায়সময়ই থাকে। এবারে, এসব নিয়ে ভাবতে শুরু করেন তখন মনের মধ্যে অসংখ্য প্রশ্ন উঠে আসে, যা অকারনে মনঃ সংযোগ বিঘ্ন করে।

কারণ দুর্গন্ধযুক্ত পা হল অস্বস্তিকর কারণ এবং সম্মানের সাথে জড়িত। পায়ের দুর্গন্ধের সমস্যাকে ব্রোমোডোসিসও বলে। পা ঘেমে যাবার কারণে পা থেকে দুর্গন্ধ বের হয়। এবারে একবার ভেবে দেখুন ঠিক একই কারনের জন্য যদি আপনার পায়ের খারাপ গন্ধের জন্য অন্য কেউ একই প্রতিক্রিয়া দেয়? তখন কি করবেন?

তাই তার আগেই সঠিক চিকিৎসা করে নেওয়া দরকার। আজকের প্রতিবেদনে দেখে নেব কি করে এই সমস্যা থেকে মুক্ত হতে পারি। ডাক্তারের মতে, লোমকূপ থেকে নির্গত ঘাম ত্বকের ব্যাকটেরিয়াকে নষ্ট করে দেয়, ফলে পা থেকে দুর্গন্ধ বেরোয়। এই ঘাম যখন পচে যায় তখন চিজের গন্ধ বেরোয় এবং যা আমাদের নাক পর্যন্ত পৌঁছায়।

পাশাপাশি, এটিও বলা হয়েছে অন্যান্য অনেক কিছুর মতন শারীরিক চাপ ও ধকল ঘাম হবার জন্য দায়ী। অতিরিক্ত চাপের জন্য পা থেকে খারাপ-বাজে গন্ধ বের হতে পারে। আবার, শরীরে হরমোনের পরিবর্তনের কারণে টিনএজার এবং গর্ভবতী মহিলাদের পা থেকে দুর্গন্ধ বের হতে পারে।

সমস্যার সমাধান হিসাবে বলা হয়েছে, ১। পছন্দসই পাউডারের সাথে সামান্য কয়েক ফোঁটা উপকারী তেল মিশিয়ে পায়ে লাগিয়ে দুর্গন্ধের হাত থেকে রেহাই পান। ২। স্নানের সময়ে ব্ল্যাক টি নিয়ে পা পরিষ্কার করলে দুর্গন্ধের হাত থেকে নিস্তার পাওয়া যায়। ৩। আপনি যখন কোথাও জুতো খুলে রাখবেন, তখন তার ভেতরে সিডার চিপসের একটা স্যাসেট রাখুন, যা আর্দ্রতা এবং দুর্গন্ধ শুষে নিয়ে জুতোকে শুকনো রাখবে।

৪। পায়ে সোডিইয়াম বাইকার্বেনেট গুঁড়ো লাগালে সেটা ময়েশ্চারাইজার শুষে নিয়ে পা শুকনো রাখে এবং দুর্গন্ধ বেরোতে দেয় না। ৫। ১৫ মিনিট করে দিনে দুইবার ঈষদুষ্ণ জল ও এপসম সল্টের মিশ্রণে পা ভিজিয়ে রাখুন। এটা ঘাম কমানোর সাথে ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে ফলে পায়ের দুর্গন্ধ কমে যায়। ৬। ল্যাভেন্ডার তেল: এই তেল শুধুমাত্র সুগন্ধি নয়, এটা দুর্গন্ধ ছড়ানো ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলে এবং পা-কে দুর্গন্ধযুক্ত রাখে।