জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে সিপিএমের দেওয়ালে আঁকা হবে হাতচিহ্ন

জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে সিপিএমের দেওয়ালে আঁকা হবে হাতচিহ্ন

দীর্ঘ বৈঠকের পর শনিবার রাতে আরও ৩৯টি কেন্দ্রের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে কংগ্রেস (Congress)। প্রার্থী তালিকা প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গেই জোট ভেঙে দেওয়ার বার্তা দিয়ে দিল কংগ্রেস হাই কমান্ড।একদিকে বামেদের বরাদ্দ বেশ কয়েকটি আসনে যেমন প্রার্থী দেওয়া হয়েছে, তেমনই আব্বাস সিদ্দিকির ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টকে (ISF) কংগ্রেস কোনও আসনই যে ছাড়বে না, সেই ইঙ্গিতই রয়েছে প্রার্থী তালিকায়।

যেমন বামেদের ঝুলিতে থাকা সামশেরগঞ্জ, শান্তিপুর-সহ বেশ কয়েকটি আসনে প্রার্থী দিল কংগ্রেস। আবার উত্তরবঙ্গ-সহ মুর্শিদাবাদের একটি আসনও ভাইজানের নতুন দল আইএসএফের জন্য একটিও আসন ছাড়া হয়নি। এদিকে, প্রদেশ কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি প্রয়াত সোমেন মিত্রর স্ত্রী শিখা মিত্র (Sikha Mitra) কংগ্রেসের হয়ে ভোট ময়দানে নামবেন কি না, সেদিকে নজর ছিল গোটা রাজ্যের। কিন্তু তাঁকে ভোটে প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে রাজি করাতে ব্যর্থ হয় বিধানভবন।

জোড়াসাঁকো আসনে তাঁকে প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দিলেও তা খারিজ করে দেন শিখা মিত্র। উল্লেখ্য, সম্প্রতি বিজেপির প্রকাশিত তালিকায় দেখা গিয়েছিল, চৌরঙ্গির প্রার্থী হিসেবে শিখা মিত্রর নাম ঘোষণা হয়। কিন্তু তাঁর ছেলে রোহন সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি ভোটে লড়বেন না। এমনকী, তিনি বিজেপিতে যোগও দেননি। এবার কংগ্রেসের হয়েও দাঁড়াতে রাজি হলেন না সোমেনপত্নী।কিছুদিন আগেই শান্তিপুরে এসেছিলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ঋজু ঘোষাল।

বিভিন্ন সামাজিক সংস্থা এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ পরিচয় এর মাধ্যমে নাম্বার বিনিময় করে বলেছিলেন, কাজে লাগতে পারে আগামতে। আর তার নিয়েই শোরগোল পড়ে গিয়েছিলো গোটা শান্তিপুরের রাজনৈতিক মহলে। তবে জোটের অপর এক শরিক সিপিআইএম অবশ্য প্রকাশ্যে কিছু না বললেও, টুম্পা সোনা গানই হোক বা   বিজেমূলের অংকের সমাধান! কাস্তে হাতুড়ি তারা চিহ্ন এঁকে মানুষের শান্তিপুর বিধানসভার প্রতীক বলে মুখে পড়েছিলেন।

শোনা গিয়েছিল শান্তিপুরের 11 নম্বর ওয়ার্ডের একমাত্র সিপিআইএম দলের জয়ী প্রাক্তন কাউন্সিলর সৌমেন মাহাতোর নাম, সিআইটিইউ র সম্পাদক অনুপ ঘোষের নামও শোনা যাচ্ছিলো! তবে সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে গতকাল, আইসিসির মুকুল ভাসনিক ঘোষণা করেন একটি পূর্ণাঙ্গ লিস্ট। তার মধ্যে উল্লেক্ষ্য বিধানসভায় ঘোষালের নাম! এখন প্রতীক্ষা সকাল হওয়ার! আদৌ কি সংযুক্ত মোর্চার সিদ্ধান্ত মেনে নেবে জোট সঙ্গী সিপিআইএম? নাকি বদলে যাবে রাজনৈতিক সমীকরণ! তবে সে যাই হোক, বিজেপির প্রার্থী জগন্নাথ সরকারের বিরুদ্ধে দলীয় এক অংশের ক্ষোভ, অপর দিকে জোটের ঘোঁট, আখেরে লাভ তৃণমূল প্রার্থী অজয় দের।