সন্ত্রাস দমনে ব্যর্থ,ফের আমেরিকার নিশানায় পাকিস্তান

সন্ত্রাস দমনে ব্যর্থ,ফের আমেরিকার নিশানায় পাকিস্তান

পাকিস্তানের জন্য খারাপ খবর। এমনিতেই মুদ্রাস্ফীতির কারণে একটি ডিমের দাম তিরিশ টাকা,আদার কিলো হাজার টাকায় পৌঁছেছে। চিনের সঙ্গে গভীর সম্পর্ক রাখায় এমনিতে আগে থেকেই আমেরিকার সুনজর থেকে বাদ পড়েছিল পাকিস্তান।

এমনকি দীর্ঘদিনের বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত সৌদি আরব মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছিল ইমরান খান সরকারের থেকে। এর মধ্যে আমেরিকায় পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নতুন করে সন্ত্রাস দমনে ব্যর্থতার অভিযোগ উঠল।

হাউজ অফ রিপ্রেজেন্টেটিভে এই সংক্রান্ত একটি বিল পেশ করেন রিপাবলিকান নেতা অ্যান্ডি বিগস। ন্যাটো বহির্ভূত বন্ধু দেশের তালিকা থেকে পাকিস্তানকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব উঠল। অতীতে জর্জ বুশের সময় প্রথমবার ন্যাটো বহির্ভূত বন্ধু দেশের তালিকায় ঢোকে পাকিস্তান।

বিল পাশ নিয়ে এখনই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে যদি বিল পাশ হয়, তাহলে মার্কিন প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম থেকে শুরু করে মহাকাশ প্রযুক্তি এবং বিভিন্ন বিষয় থেকে বঞ্চিত হতে হবে ইমরান খানের দেশকে। অতীতে মার্কিন সাংবাদিক ড্যানিয়েল পার্লকে পাকিস্তানে হত্যা করে জঙ্গিরা।

আবোতাবাদে পাকিস্তানের মিলিটারি স্কুলের সামনে একটি বাড়িতে ওসামা বিন লাদেনকে গুলি করে হত্যা করে মার্কিন সেনা। এছাড়াও তালিবান এবং হাক্কানি সংগঠনকে তলায় তলায় সাহায্য করার অভিযোগ উঠে আসছে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে।

আফগানিস্তানে মার্কিন সৈন্যদের বিরুদ্ধে এঁদের ব্যবহার করার যথেষ্ট প্রমাণ পেয়েছে আমেরিকা। মুখে নিজেদের আমেরিকার বন্ধু দাবি করলেও ভেতরে ভেতরে আইএসআই এবং পাক সামরিক বাহিনী যে পুরো উল্টো কাজ করে তা প্রমাণিত হয়ে গিয়েছে।

এছাড়াও চিন, পাকিস্তান এবং তুরস্ক এই তিনটি দেশ মিলে যে নতুন জোট তৈরি হয়েছে সেটাও ভালোভাবে নিচ্ছে না আমেরিকা। ফলে ইমরান খান প্রশাসনের সামনে কঠিন সময় দরজায় কড়া নাড়ছে।

চিন পাকিস্তানে প্রচুর লগ্নি করেছে বটে, কিন্তু জিনপিং সরকার যে পরিমাণ অর্থ ঋণ হিসেবে দিয়েছে পাকিস্তানকে, চড়া সুদের হারে তা ফেরত নেবে সেটাও জানিয়ে দিয়েছে। ফলে সবদিক থেকেই চাপ ক্রমশ বাড়ছে ইমরান সরকারের ওপর।