অবশেষে বন্ধু বিমল গুরুং-এর বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের কাজ শুরু করে দিল মমতার সরকার

অবশেষে বন্ধু  বিমল গুরুং-এর বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের কাজ শুরু করে দিল মমতার সরকার

শত্রু থেকে মিত্র হয়েছেন বিমল গুরুং (bimal gurung)। তৃণমূলের (trinamool congress) হয়ে প্রচারও শুরু করেছেন পাহাড় থেকে ডুয়ার্স সর্বত্র। ফলে এবার তাঁর বিরুদ্ধে থাকা মামলা প্রত্যাহারের পথে রাজ্য সরকার। যদি বিষয়টিকে এভাবে দেখতে নারাজ সরকারের মন্ত্রীরা। আদালতের মাধ্যমেই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন তাঁরা।

২০১৭ সালে পাহাড় উত্তপ্ত হয়ে উঠলে বিমল গুরুং-এর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা করে রাজ্য পুলিশ। সরকারি দফতরে অগ্নিসংযোগ, পুলিশের উপরে হামলা, গাড়ি ভাঙচুর, পুলিশ কর্মী হত্যা, দার্জিলিং ও কালিম্পংয়ের নানা জায়গা বিস্ফোরণ ঘটানোর অভিযোগে আইপিসি'র বিভিন্ন জামিন অযোগ্য ধারার পাশাপাশি ইউএপিএ ধারাতেও মামলা দায়ের করে রাজ্য সরকার।

৭০-এর বেশি মামলা রয়েছে গুরুংয়ের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, সেই মামলাগুলি প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। দার্জিলিং পুলিশকে আইনি পদ্ধতি অবলম্বন করে বন্ধু' গুরুংয়ের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া শুরু করতে বলেছে নবান্ন। পাহাড়ের সমীকরণ এখন উল্টে গিয়েছে। বিমল ফের মমতার ঘনিষ্ট হওয়ায় বিনয় তলে তলে চলে গিয়েছেন গেরুয়া বলয়ে।

সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই বিমল গুরুং শিবিরের কর্মীরা দার্জিলিং ও কালিম্পং জেলার পার্বত্য এলাকার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। বিভিন্ন এলাকায় গুরুংয়ের নামেই খোলা হয়েছে গোর্খা জনমুক্তি কার্যালয়। গুরুংয়ের খাস এলাকা দার্জিলিংয়ের সিংমারি, পাতলেবাস তো আছেই দ্রুত মিরিক ও লেবং, বিজনবাড়িতে শক্তিশালী ঘাঁটি তৈরিতে মগ্ন গুরুং। তাই ভোটের কথা মাথায় রেখে গুরুং-কে 'সাত খুন মাফ' করার পথে হাঁটছে মমতার সরকার।