ছোট ভাই' বলে রাজীবের পাশে দাঁড়ালেন ফিরহাদ

ছোট ভাই' বলে রাজীবের পাশে দাঁড়ালেন ফিরহাদ

গত কয়েকদিন ধরেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Rajib Banerjee) রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে নতুন করে জল্পনা শুরু হয়েছে। প্রাক্তন মন্ত্রীর ফেসবুক পোস্টই উসকে দিয়েছে এই জল্পনা। কারণ, সেখানে রাজীব স্পষ্টভাবে বুঝিয়েছিলেন যে বিজেপির লাগাতার তৃণমূল বিরোধিতা মোটেও ভালভাবে নিচ্ছেন না তিনি। এই পরিস্থিতিতে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিষয়ে মুখ খুললেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। প্রাক্তন সহকর্মীকে 'ছোট ভাই' বলে সম্বোধন করে বললেন, 'ওঁর বোধদয় হয়েছে সেটা ভাল লক্ষণ।'

বৃহস্পতিবার উত্তীর্ণ ভবনে একটি কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছিলেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম (Fairhad Hakim)। সেখানে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। সেই সময়ই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলে ফেরা নিয়ে প্রশ্ন করা হয় তাঁকে। উত্তরে ফিরহাদ বলেন, 'দলত্যাগীদের দলে ফেরানো হবে কি না, সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ওয়ার্কিং কমিটি। এ বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। তবে ব্যক্তিগতভাবে বলব, রাজীব আমার ছোট ভাইয়ের মতো। যেদিন শেষ মন্ত্রিসভার বৈঠক ছিল, সেদিও ওকে ফোন করেছিলাম।

ও কেন বিজেপিতে গেল, কেন ওর সঙ্গে এমনটা হল, জানি না। গোটা ঘটনায় আমি বিস্মিত। ' ফিরহাদের কথায়, 'অনেকের তো দেরিতেও বোধের উদয় হয় না। ওর অনেকটা তাড়াতাড়ি বোধদয় হয়েছে, সেটা অবশ্যই ভাল লক্ষণ।' যদিও মন্ত্রী জানিয়েছেন, একাধিক দলত্যাগী তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে চিঠি পাঠালেও রাজীবের তরফে কোনও চিঠি এসেছে বলে তাঁর জানা নেই। তবে যাই হয়ে থাকুক, ক্ষমা করে এগিয়ে যাওয়ার কথাই বললেন ফিরহাদ।  উল্লেখ্য, বিজেপিতে (BJP) যোগ দিয়ে একুশের নির্বাচনে নিজের কেন্দ্র ডোমজুড় থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

কিন্তু নিজের গড়েও জয়ের মুকুট তাঁর মাথায় ওঠেনি। পরাজয়ের পর থেকেই বিজেপির সঙ্গে দূরত্ব বাড়াতে শুরু করেন রাজীব। পরবর্তীতে দিন কয়েক আগে রাজ্য সরকারের সপক্ষে একটি ফেসবুক পোস্ট করেন। যা নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র কটাক্ষ করেন সৌমিত্র খাঁ (Saumitra Khan)। এবিষয়ে বিজেপি নেতাকে উত্তর দিতে হবে বলে জানিয়েছেন দিলীপ ঘোষও (Dilip Ghosh)।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার টুইটারে রাজীব লেখেন, 'সমালোচনা তো অনেক হল... মানুষের বিপুল জনসমর্থন নিয়ে আসা নির্বাচিত সরকারের সমালোচনা ও মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধিতা করতে গিয়ে কথায় কথায় দিল্লি আর ৩৫৬ ধারার জুজু দেখালে বাংলার মানুষ ভাল ভাবে নেবে না। আমাদের সকলের উচিত রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে কোভিড ও ইয়াস, এই দুই দুর্যোগে বিপর্যস্ত বাংলার মানুষের পাশে থাকা।' সেই থেকেই রাজীবের 'ঘর ওয়াপসি'-র জল্পনা শুরু হয়েছে।