বিকাশ ভবনের সামনেই বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা পাঁচ শিক্ষিকার

বিকাশ ভবনের সামনেই বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা পাঁচ শিক্ষিকার

চাকরিতে বদলির নির্দেশে ক্ষুব্ধ হয়ে বিষ খেলেন পাঁচ শিক্ষিকা। মঙ্গলবার দুপুরে সল্টলেকের বিকাশ ভবনের সামনে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। বেতন বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলনের মাঝেই পাঁচ শিক্ষিকাকে অন্যত্র বদলি করে দেওয়া হয় বলে দাবি। মঙ্গলবার শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর সঙ্গে দেখা করতে বিকাশ ভবনে গিয়েছিলেন ওই পাঁচজন। তবে মন্ত্রী না থাকায় দেখা হয়নি। পরে বাইরে এসে পুলিশের সঙ্গে তুমুল তর্কাতর্কি বেঁধে যায় পাঁচ শিক্ষিকার।

মুহুর্তে ব্যাগ থেকে একটি শিশি বের করে বিষ খেয়ে নেন পাঁচজন। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় পাঁচজনই ভর্তি হাসপাতালে। তাঁদের মধ্যে দু'জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে। জানা গিয়েছে, বেতন বৃদ্ধি নিয়ে আন্দোলন করছিলেন শিক্ষক ঐক্য মুক্তমঞ্চ নামে একটি সংগঠনের সদস্যরা। সেই আন্দোলনেই যুক্ত রয়েছেন এই পাঁচ শিক্ষিকা। বেতন বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলনের মাঝেই আচমকা এই পাঁচ শিক্ষিকাকে তাঁদের হোম ডিস্ট্রিক্ট থেকে অন্য জেলায় বদলি করে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি। এই বদলির প্রতিবাদে এদিন সল্টলেকের বিকাশ ভবনের সামনে সোচ্চার হতে দেখা গিয়েছে পাঁচ শিক্ষিকাকে।

শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর সঙ্গে দেখা করতে এদিন বিকাশ ভবনে যান পাঁচজন। মন্ত্রীর সামনেই বদলির প্রতিবাদ জানাবেন বলে তাঁরা ঠিক করেছিলেন। তবে শিক্ষামন্ত্রী না থাকায় দেখা হয়নি। কর্তব্যরত আধিকারিকদের সঙ্গে দেখা করেই বেরিয়ে আসেন ওই পাঁচ শিক্ষিকা। বিকাশ ভবনের বাইরে বেরিয়ে ফের বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তাঁরা। বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে তুমুল তর্কাতর্কি শুরু হয়ে যায় শিক্ষিকাদের। মহিলা পুলিশের কর্মীদের সঙ্গে রীতিমতো ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায় শিক্ষিকাদের।

এরই মধ্যে পাঁচ শিক্ষিকা নিজেদের ব্যাগ থেকে শিশি বের করে কিছু খেয়ে নেন। তারপরেই রীতিমতো অসু্স্থ হয়ে পড়েন তাঁরা। পাঁচজন বিষ খেয়েছেন বলেই প্রাথমিকভাবে ধারণা করে পুলিশ। তড়িঘড়ি অসু্স্থ পাঁচজনকে উদ্ধার করে বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যান পুলিশকর্মীরা। তবে শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় প্রত্যেককেই স্থানান্তর করে দেওয়া হয়। অসুস্থ শিক্ষিকাদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা সংকটজনক হওয়ায় তাঁদের এনআরএস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পাঠানো হয়।

বাকি ৩ জন ভর্তি রয়েছেন আর জি কর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। এদিকে, এদিনের এই ঘটনার পরেই বিকাশ ভবনের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। গোটা এলাকা ঘিরে ফেলে বিশাল পুলিশ বাহিনী। পরে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু হাজির হন বিকাশ ভবনে। যদিও এব্যাপারে তাঁর প্রতিক্রিয়া মেলেনি।