প্রয়াত হলেন ভাঙড়ের প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক ডা. আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা

প্রয়াত হলেন ভাঙড়ের প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক ডা. আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা

আজবাংলা     প্রয়াত হলেন ভাঙড়ের প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক ডা. আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা। দীর্ঘদিন ধরে তিনি বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।এদিন আব্দুর রাজ্জাক মোল্লার শ্যামনগরের বাড়িতে শেষ শ্রদ্ধা জানান তুষার ঘোষ, রশিদ গাজী-সহ অন্যান্য বাম নেতারা। 

কলেজে পড়ার সময় বামপন্থী ছাত্র আন্দোলনের প্রতি আকৃষ্ট হন রাজ্জাক। ক্রমে রাজনীতির মূল স্রোতে যুক্ত হয়ে তিনি রাজ্য সিপিএমের প্রথম সারির নেতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সফল হন। ১৯৮৭ সালে অবিভক্ত ভাঙড় বিধানসভার বিধায়ক নির্বাচিত হন জনপ্রিয় সিপিএম নেতা আব্দুর রেজ্জাক মোল্লা।

পাঁচ বছর তিনি ভাঙড়ের বিধায়ক হিসেবে ক্ষমতায় আসীন ছিলেন। পদ হারানোর পরেও দীর্ঘ দিন তিনি বামপন্থী রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তবে মাঝে দল-বিরোধী পদক্ষেপের অভিযোগে দল সিপিএম থেকে বহিষ্কৃত হন রাজ্জাক মোল্লা।মাত্র সাড়ে চার বছর বিধায়ক থাকার পর ১৯৯১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে তাঁর জায়গায় দলীয় টিকিটে জয়ী হন বাদল জমাদার।

তার পর থেকেই তিনি পার্টি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়ে এলাকায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক হিসেবে খ্যাতি লাভ করেন।শ্যামনগর অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকও ছিলেন রাজ্জাক। পোলেরহাট হাইস্কুল গঠনে ও পাকাপোল থেকে বোয়ালঘাটা রাস্তা নির্মাণের ক্ষেত্রেও তাঁর অবদান রয়েছে।  তাঁকে শ্রদ্ধা জানাতে শ্যামনগরের বাসভবনে উপস্থিত হন রশিদ গাজী, তুষার ঘোষ এবং স্থানীয় বাম নেতাদের একাংশ। এদিনই তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে বলে জানা গিয়েছে।